সিরাজদিখানে প্রতিপক্ষের হামলায় হাসপাতালে কাতরাচ্ছে সজীব দাস, মামলা নিচ্ছে না পুলিশ

  লতা মন্ডল,সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ৯ এপ্রিল ২০২১ |  আপডেট  : ১১ মে ২০২১

পূর্ব শত্রুতার জেরে সিরাজদিখান উপজেলার পশ্চিম শিয়ালদী গ্রামের সজীব দাস (২৮) নামে এক ব্যক্তি সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়ে গত ৪ দিন ধরে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে হাসপাতালের বিছানায়। আহত সজিব দাস উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের পশ্চিম শিয়ালদী গ্রামের দিলীপ দাসের ছেলে। এ ঘটনায় প্রভাবশালীদের চাপে থানায় মামলা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ তার পরিবারের। 

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার সকাল থেকে দিলীপ দাস ও বীরেন দাসের জমি জমার মাপ হচ্ছিল।  জমি মাপার শেষর দিকে সিমানার জন্য খুটি গাড়তে গেলে সুশিল  দাস তার ভাতিজা সজিব দাসেকে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে কিল ঘুষি লোহার খুনতি ও বাঁশ দিয়ে মাথায় বাড়ি দিয়ে মাথা ফাটিয়ে ফেলে। আহত সজীব দাসের মা সবিতা রানী দাস বলেন,  পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই গ্রামের মৃত সুরেশ দাসের ছেলে বীরেন দাস,সুশীল দাস,সুনিল দাস ও অনিল দাসের নেতৃত্বে ৭-৮ জন সন্ত্রাসী তাদের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা তাকে বেধরক মারধর করে একটি হাত ও মাথা ফাটিয়ে দেয়। পরে তাকে টেনে হিঁচড়ে বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখেত চায়।  খবর পেয়ে একই গ্রামের মৃত আবেদ আলী দেওয়ানের ছেলে লিটন দেওয়ান ও মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে মোঃ জাহাঙ্গির ও তাদের লোকজন নিয়ে ওই জমিতে গিয়ে সজীব দাসকে উদ্ধার করে রাতেই চিকিৎসার জন্য সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে· হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। অবস্থা আশঙ্কানক থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর কথা বলেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।  

এ ব্যাপারে মোঃ জাহাঙ্গির  বলেন, সজীব দাস ও তার পরিবারের লোকজন নিরীহ । অপরদিকে বীরেনসহ তার ভাইয়েরা প্রায়ই বাড়িতে ঝগড়াঝাটি মারামারি করেন এবং অনেক অপকর্মের সাথে জড়িত। তাদের ভয়ে ওই বাড়ির লোকজন তাদের বিরুদ্ধে  কিছু বলতে সাহস পায় না। গত তিনদিন ধরে থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছে শুনেছি  কিন্তু বীরেন ও তার ভাইদের বিরুদ্ধে মামলা নিচ্ছে না পুলিশ। সিরাজদিখান থানার ওসি এসএম জালাল উদ্দীন  বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত