৭ পুলিশসহ আহত ১৫

নন্দীগ্রামে আদিবাসী-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় ৬৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

  নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি :

প্রকাশ: ৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১৪:০৭ |  আপডেট  : ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:৪১

বগুড়ার নন্দীগ্রামে আদিবাসী-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় থানার এসআই রেজাউল করিম বাদী হয়ে বুধবার ৮ ডিসেম্বর সকালে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে মোট ৬৯ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে। মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর রাত আনুমানিক ৮ টারদিকে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের দাসগ্রাম বৃন্দাবনপাড়া আদিবাসী পল্লীতে মাদক উদ্ধার করতে যায় থানা পুলিশ। এ সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৭ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়। আহত ১ এসআইকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, হামলাকারীরা আদিবাসী নয়, তারা স্থানীয় সন্ত্রাসী। মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় পৃথক ২টি মামলা হয়েছে। শুধু মাদক মামলায় আদিবাসীদের আসামি করা হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন থানার এসআই রেজাউল করিম-১, এসআই রেজাউল করিম-২,এসআই রফিকুল ইসলাম, এএসআই আমিনুল ইসলাম, এএসআই আল-আমিন, এএসআই মিন্টু রহমান ও কনস্টেবল সজল হোসেন। 

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের দাসগ্রাম বৃন্দাবনপাড়ায় আদিবাসী পল্লীতে বিপুল পরিমাণ চোলাই মদ মজুদ ও বেচাকেনা চলছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ জানতে পেরে সেখানে অভিযান চালায়। সেসময় আদিবাসীদের হেফাজত থেকে চোলাই মদ উদ্ধার করতে গেলে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে সেখান থেকে ১৮ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। দাসগ্রাম বৃন্দাবনপাড়ার আদিবাসী পল্লীর জাম্বু মাহাতো জানান, আগামি শনিবার তার ২ মেয়ে পাতা রাণী মাহাতো ও লতা রাণী মাহাতোর বিয়ে। এ বিয়েতে তাদের সামাজিক রীতি অনুসারে বরপক্ষের জন্য বাড়িতে চোলাই মদ তৈরি করে রাখা হয়। তিনি অভিযোগ করেন, মঙ্গলবার রাত ৮টারদিকে থানা পুলিশের একটি দল তার বাড়িতে হানা দেয়। তারা ঘরেঘরে ঢুকে তল্লাশি করার সময় নারী ও পুরুষদেরকে লাঠিপেটা করতে থাকে। এতে ক্ষুব্ধ আদিবাসীরা সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হয় এবং তাদের ঘেরাও করে। থানা পুলিশের মারপিটে হরিশ্চন্দ্র মাহাতো, ভক্তি রাণী মাহাতো, অন্তরা রাণী মাহাতোসহ ৭-৮ জন আদিবাসী আহত হয়েছে। এ ঘটনার পর আদিবাসী পল্লীর বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ দাসগ্রাম বাজারে গিয়ে পুলিশী হামলার প্রতিবাদ জানায়। 

থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, দাসগ্রাম আদিবাসী পল্লীতে চোলাই মদ উদ্ধারে গেলে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। তাদের কাছ থেকে ১৮ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক ২টি মামলা হলেও বুধবার দুপুর পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত