তেতুলিয়ায় স্বামীর নির্যাতনে আত্নহত্যার স্ত্রীর অভিযোগ

  মোঃ কামরুল ইসলাম কামু

প্রকাশ: ৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:০৯ |  আপডেট  : ২২ মে ২০২৪, ০৫:১১

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় স্বামীর নির্যাতনে সবুরা খাতুন (৪৫) নামে এক নারীর আত্মহত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (৪ ডিসেম্বর) মধ্যরাতে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু হয়। ভুক্তভোগী সবুরা খাতুন উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়নের ভূতিপুকুর এলাকার কাশিম উদ্দিন হুলুর স্ত্রী।

নিহত নারীর পরিবারের সদস্যরা জানায়, প্রায় ২২ বছর আগে প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর দেবনগড় ইউনিয়নের কামাতপাড়া এলাকার ফজলে করিমের মেয়ে সবুরা খাতুনের সাথে ভজনপুর ইউনিয়নের ভূতিপুকর এলাকার নসির উদ্দিনের ছেলে কাশিম উদ্দিন হুলুর বিয়ে হয়।

তাদের সংসারে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। পারিবারিক কলহের কারণে ইতোপূর্বে কয়েকবার তাদের নিয়ে শালিসি বৈঠকও হয়েছে। রোববার ভাইয়ের বাড়িতে যাওয়া নিয়ে পুনরায় তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ড হয়।

দু’জনের মধ্যে এক পর্যায়ে হাতাহাতির পর নিহত সবুরাকে মারধর করে স্বামী কাশিম। রাগে ক্ষোভে বাড়িতে থাকা কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সবুরা। পরে তাকে আবারও মারধর করলে সবুরার অবস্থার অবনতি হয়। এসময় সবুরাকে মুমুর্ষ অবস্থায় পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সবুরার ভাই খাদেমুল ইসলাম বলেন, কাশিম আমার বোনকে সামান্য বিষয় নিয়েও মারধর করতো। সেদিন আমার বাড়িতে আসতে চাওয়ায় তাকে প্রচণ্ড মারপিট করে। রাগে ক্ষোভে আমার বোন বিষপানে আত্মহত্যা করে। ওই অবস্থায় তাকে আবারও মারধর করে কাশিম। পরে আমার বোনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় পঞ্চগড় আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। সোমবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হলে কাশিম মরদেহ হাসপাতালে রেখেই পালিয়ে যায়। আমরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

অভিযুক্ত কাশিম উদ্দিন বলেন, আমি  তাকে কোন মারপিট করিনি। ভাইয়ের বাড়িতে যেতে নিষেধ করায় সে নিজেই বিষপান করেছে।

দেবনগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছলেমান আলী বলেন, ওই নারীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আমরা এ ঘটনার ন্যায্য বিচার চাই।

পঞ্চগড় সদর থানার উপ-পরিদর্শক  ফজলুল করিম বলেন, সুরতহালে ওই নারীর শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় নি। ধারণা করা হচ্ছে, বিষপানেই তিনি মারা গেছেন। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

তেতুঁলিয়া থানার আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, আত্মহত্যার ঘটনায় নিহতের পরিবার থানায় কোন অভিযোগ করে, তাহলে আমরা অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

 

সান

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত