১৭ অক্টোবর হতে ঢাবিতে সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা

  গ্রামনগর বার্তা রিপোর্ট

প্রকাশ: ৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫৭ |  আপডেট  : ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৭:১০

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দীর্ঘ দেড় বছর পর সরাসরি শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি)। অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে প্রত্যেকটি বিভাগ তাদের নিজস্ব সুবিধা অনুযায়ী সরাসরি শ্রেণিতে পাঠদান বা পরীক্ষা নিতে পারবে।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় এমন সুপারিশ করা হয়। একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য ও জিয়াউর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

যেসব বিভাগে শতভাগ টিকা নিশ্চিত হয়েছে সেসব বিভাগ চাইলে ১৭ অক্টোবর থেকেই সশরীরে ক্লাস বা পরীক্ষা নিতে পারবে। আবার যেসব বিভাগে শতভাগ টিকা নিশ্চিত হয়নি তারা চাইলেই শতকরা ৪০ ভাগ ক্লাস অনলাইনে সম্পন্ন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে বিভাগগুলোকে তাদের নিজস্ব অবস্থা বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরুর পর অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো গত বছর ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ও। বন্ধ করে দেওয়া হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোও।

দেড় বছরেরও বেশি সময় পর গত ৫ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রথম ধাপে অনার্স চতুর্থ বর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য আবাসিক হল খুলে দেয়। শুরু থেকে সব বর্ষের শিক্ষার্থীদের হলে উঠানোর ব্যাপারে দাবি প্রথম দিন অনার্স চতৃর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরা হলে ওঠেন।

কয়েক ঘণ্টা পর সেদিন সন্ধ্যায় প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির এক জরুরি সভা হয়। সেখানে অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ১০ অক্টোবর থেকে নির্ধারিত নিয়ম অনুসরণ করে সব বর্ষের শিক্ষার্থীদের হলে উঠার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। আর ১৬ অক্টোবর থেকে সব বিভাগ-ইনস্টিটিউটের সব বর্ষের শ্রেণি কার্যক্রম (ক্লাস-পরীক্ষা) শুরু হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু আজকের একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় ১৭ অক্টোবর থেকে সরাসরি শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম শুরুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক বিল্লাল হোসেন বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় আজ শ্রেণিকক্ষে সরাসরি ক্লাস শুরু করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করছি আগামী ১৬ অক্টোবরের পূর্বে অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা শতভাগ হয়ে যাবে। সে হিসেবে ১৭ অক্টোবর থেকে শ্রেণিকক্ষে সশরীরে ক্লাস শুরু করার সুপারিশ করা হয়েছে। আজকের সিদ্ধান্তটা সবার জন্যই অনেকটা নমনীয় করা হয়েছে। যেসব বিভাগে বা ব্যাচে শতভাগ শিক্ষার্থী অন্তত এক ডোজ টিকা নেননি সে বিভাগের শিক্ষক চাইলে উনার নির্ধারিত কোর্সের শতকরা ৪০ ভাগ অনলাইনে নিতে পারবেন। বাকি ৬০ ভাগ সরাসরি নেবেন। এছাড়াও চলমান পরীক্ষাগুলো যেভাবে শুরু হয়েছে সেভাবে শেষ করতে হবে। অনলাইনে শুরু হওয়া পরীক্ষাগুলো অনলাইনে এবং অফলাইনে শুরু হওয়া পরীক্ষাগুলো অফলাইনে হবে।

ঢাবির এই শিক্ষক আরও বলেন, ১৭ অক্টোবর প্রতিটি বিভাগেই ক্লাস শুরু করতে হবে এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নাই। বিভাগগুলো তাদের সুবিধামতো ক্লাস ও পরীক্ষা নেবে।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত