হবিগঞ্জে খতনায় ভুল, সংকটে শিশুর জীবন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ৭ মার্চ ২০২৪, ১৭:০০ |  আপডেট  : ২২ মে ২০২৪, ০২:১৭

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে নিবন্ধনহীন একটি হাসপাতালে খতনা করানো এক শিশুর জীবন সংকটের মুখে। গুরুতর অবস্থায় ওই শিশুকে সিলেটের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিকের বিরুদ্ধে নবীগঞ্জ থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

বুধবার (৬ মার্চ) সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি হীরাগঞ্জ বাজারের কেয়ার মেডিক্যাল সার্ভিসেসে এ ঘটনা ঘটে। মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি বাজারে দীর্ঘদিন ধরে কার্যক্রম চালিয়ে আসছে কেয়ার মেডিক্যাল সার্ভিসেস নামে একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন হাসপাতাল। কোনও নিবন্ধন ছাড়াই ২০১৬ সাল থেকে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে হাসপাতালটি। ওই উপজেলার উত্তর ফরিদপুর গ্রামের আব্দুস শহিদের স্ত্রী পারভীন বেগম বুধবার সন্ধ্যায় ১৩ বছর বয়সী ছেলেকে খতনা করাতে নিয়ে যান। পাঁচ হাজার টাকার বিনিময়ে খতনা করেন ডা. জহিরুল ইসলাম জয়।

কিন্তু খতনার সময় পুরুষাঙ্গের অতিরিক্ত মাংস কেটে ফেলায় মারাত্মক রক্তক্ষরণ শুরু হলে শিশুটিকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট পাঠানো হয়। পরে এ বিষয়ে স্বজনরা হাসপাতালে গেলে তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় রাতেই নবীগঞ্জ থানায় সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও হাসপাতাল মালিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন শিশুর চাচা হারুন মিয়া। জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন স্বজনরা। 

এদিকে জানা যায়, ১৫ দিন আগে ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি সিলগালা করা করে দিয়েছিল প্রশাসন।  

হাসপাতালটির পরিচালক রুহুল আমিন বলেন, রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় দ্রুত রোগীকে সিলেট পাঠানো হয়। আর দুর্ব্যবহার নয়, মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণকে কেন্দ্র করে বাগবিতণ্ডা হয়েছে। নবীগঞ্জ থানার ওসি মাসুক আলী জানান, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বর্তমানে রোগী আইসিও তে আছে । 

সা/ই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত