স্বাগতম ২০২২

  গ্রামনগর বার্তা রিপোর্ট

প্রকাশ: ১ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৫৪ |  আপডেট  : ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:০৩

স্বাগতম ২০২২। আরো একটি নতুন বছরে প্রবেশ করলো গোটা বিশ্ব। গত রাতে সারা বিশ্বে নতুন বছরের আগমনকে স্বাগত জানানো হয়েছে নানা বর্ণিল আয়োজনে। বাংলাদেশও তার ব্যতিক্রম নয়। যদিও কোভিড সংক্রমণ এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার উন্মুক্ত অনুষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল। তবে তাতে নতুন বছরের আনন্দ আয়োজনে ভাটা পড়েনি। ঘড়ির কাঁটা রাত বারোটার ঘর পেরুনোর সঙ্গে সঙ্গে আলোর ঝলকানিতে রঙিন হয়ে উঠেছিল ঢাকার আকাশ। বাজির আওয়াজ আর নারী পুরুষের হল্লায় সৃষ্টি হয়েছিল কোলাহলময় পরিবেশ। লাখো কণ্ঠে ধ্বনিত হয়েছে ‘হ্যাপি নিউইয়ার’।

প্রতি বছরই নতুন বছররের আগমনের দিন একই দৃশ্যের অবতারণা হয়ে থাকে। একইভাবে সবাই বলে থাকে হ্যাপি নিউইয়ার। কিন্তু বছরটি শেষ পর্যন্ত সর্বাংশে হ্যাপি থাকে না। নানা দুর্ঘটনা, অনিয়ম, দুর্নীতি, সন্ত্রাস, সংঘাত সংঘর্ষে বছরটি হয়ে ওঠে দুঃসহ। যেমন ছিল গত বছরটি। আগের বছরের করোনাভাইরাসের ব্যাপকতা না থাকলেও বছরের অর্ধেকজুড়ে এর দাপট ছিল প্রবল। তবে, টিকা প্রদান এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কারণে তা অনেকটাই কমে আসে। মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে, স্বচ্ছন্দে বাইরে বেরিয়ে আসতে শুরু করে। এখনও আমরা করোনার অভিশাপমুক্ত হতে পারিনি। তবে প্রকোপ কমে আসায় অনেকটাই নির্ভয়ে জীবনযাপন করছি সবাই। নতুন বছরে পৃথিবী থেকে করোনা নামের অভিশাপটি চিরতরে দূরীভূত হয়ে যাক, এ কামন করি আমরা। 

খৃষ্টীয় নববর্ষ উপলক্ষে রষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা নতুন বছরে সবার সাফল্য কামনা করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। জাতীয় দৈনিক পত্রিকাগুলো দিনটিকে স্বাগত জানিয়ে সম্পাদকীয়, বিশেষ নিবন্ধ এবং বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। রেডিও এবং টিভি চ্যানলগুলো বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করছে। 

খৃষ্টীয় নববর্ষ আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতির অংশ না হলেও তা আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে মিশে আছে এককার হয়ে। আমরা জীবনযাপনের প্রতিটি স্তরে খৃষ্টীয় সন-তারিখ ব্যবহার করে থাকি। আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে তা হয়ে ওঠে অত্যাবশ্যক। আর সেজন্যই খৃষ্টীয় নববর্ষ আমাদেরকে উদ্বেলিত করে, আমরা আনন্দমুখর হয়ে উঠি। 

আগের বছরটি খারাপ গেলেও সামনের বছরটি ভালো যাবে- এই আশাতেই আমরা সব সময় বুক বেঁধে থাকি। আশান্বিত হয়ে থাকি নতুন বছরটি হয়তো শুভ কছু নিয়ে আসবে। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই আমাদেরকে হতাশ হতে হয়। নানা রকম দুর্যোগ-দুর্বিপাক এবং অঘটন আমাদের শান্তি কেড়ে নেয়, জীবনকে করে তোলো দুর্বিসহ। তারপরও আমরা আশায় থাকি হয়তো সামনে ভালো কিছু অপেক্ষা করছে। এবারও আমরা আশা করছি নতুন বছরটি পৃথিবীতে নব জাগরণের সৃষ্টি করবে, সমস্ত অশান্তিকে উপড়ে ফেলে শান্তির গ্রামে পরিণত করবে এ ধরণীকে। 

নববর্ষ উপলক্ষে গ্রামনগরবার্তার পাঠক, পৃষ্ঠপোষক, বিজ্ঞাপনদাতা, শুভানুধ্যায়ী সবাইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। শুভ হোক ২০২২ সাল।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত