মিরকাদিমে বিভিন্ন বাহিনীর বিরুদ্ধে হুশিয়ারি উচ্চারণ করলেন মেয়র বিপ্লব

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ মার্চ ২০২১, ৯:৫১ সকাল |  আপডেট  : ২৯ জুলাই ২০২১, ২:৪৭ দুপুর

কাজী দীপু: জেলা শহরের উপকণ্ঠ মিরকাদিম পৌর এলাকার বদু বাহিনীসহ একাধিক বাহিনী বিগত সময়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল, তাদের বিরুদ্ধে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব। বুধবার বিকেলে মিরকাদিমের রামগোপালপুর রাইস মিল মাঠে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে যুব সমাজের আইডল পৌর মেয়র মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর দিন থেকে মিরকাদিমে কোনো সন্ত্রাসী বাহিনী থাকতে পারবে না। আওয়ামী লীগে নেতাকর্মী সেজে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়ে বঙ্গবন্ধু ও তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানা উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্ত করে এমন কোন কার্যকলাপ বরদাসত করা হবে না।

মেয়র বিপ্লব বলেন, সারাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে। মুখে নানা বুলি ছড়ালেও স্বাধীনতর পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত মিরকাদিম পৌরসভা নানা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। একই সঙ্গে পৌর এলাকার নিরিহ মানুষগুলো নানাভাবে নির্যাতিত ও নিপীরিত। তাই পৌর নাগরিকদের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা আজ থেকেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ভুমিকা পালন করবে। যাতে স্বাধীনতা বিরোধী চক্র বিএনপিকে সঙ্গী করে মিরকাদিম পৌরসভাকে কলঙ্কিত করতে না পারে। 

বিএনপিসহ দুষ্কৃতিকারীদের উদ্দেশ্যে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের বড় ছেলে মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব বলেন, আপনারা ভালো থাকেন এবং পৌরবাসীকেও ভাল থাকার সুযোগ দিন। নিরীহ মানুষগুলো নিপীরিত হলে কাউকে ছাড় দেওয়া  হবে না।  

জাতির পিতার পরিবারের কাছে ঋনী নই, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের ওপর দায় রয়েছে। তাই কোনো ভাবেই আওয়ামী লীগের সাইনবোর্ড ব্যবহার করে মিরকাদিমে কোনো সন্ত্রাসী বাহিনী অপকর্ম করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের ওপর কোন কলঙ্কের দাগ লাগতে দেওয়া হবে না।
মেয়র মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব দুষ্কৃতকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন,  এক সময় মিরকাদিমের কমলাঘাট বন্দরে হুইসেলের শব্দে মালবাহী জাহাজ নোঙর করতো। কালের বিবর্তে সেই পরিস্থিতি বিলুপ্তির পথে চলে গেলেও হুইসেল বা বাশিঁ আমার হাতে চলে এসেছে। এখন হুইসেলের বাশিঁ বাজালেই বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ভুমিকা পালন করবে। এমনকি সন্ত্রাসের আস্তানা গুড়িয়ে দেওয়া হবে। 

মেয়র বিপ্লব আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, ২০৪১ সালের মধ্যে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ আরো মাথা উচুঁ করে দাড়াঁবে। তখন আমার দেশ বাংলাদেশ ও আমি বাঙালী এই পরিচয় দিতে গর্বিতবোধ করবে বাঙালী জাতি।

আওয়ামী লীগ নেতা হাজী আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় সেচ্ছা সেবক লীগের সদস্য সুমন দেওয়ানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. আফসারউদ্দিন ভুইয়া, সাধারণ সম্পাদক সামছুল কবিরসহ স্থানীয় আ'লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখেন। 

এদিকে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল শেষে ১০১ কেজি ওজনের কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত