বিখ্যাত সন্তুর বাদক পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা আর নেই

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ মে ২০২২, ১৫:১৮ |  আপডেট  : ১৯ মে ২০২২, ১৬:৪৬

বিখ্যাত সন্তুর বাদক পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। বিখ্যাত এই শিল্পীর প্রয়াণে ভারতের সাংস্কৃতিক মহলে শোকের ছায়া। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা গত ৬ মাস ধরে কিডনি সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছিলেন। তার ডায়ালিসিস চলছিল। মঙ্গলবার (১০ মে) সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়। বাদ্যযন্ত্র সন্তুর কাশ্মীর উপত্যকার বাইরে খুব একটা পরিচিত ছিল না। এই বাদ্যযন্ত্রটিকে ভারতে জনপ্রিয় করে তোলেন পণ্ডিত শিবকুমার।

তার মৃত্যুতে শোক জানিয়ে মোদি এক টুইটে বলেন, পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা জির মৃত্যুতে আমাদের সাংস্কৃতিক জগৎ আরও দরিদ্র হলো। তিনি সন্তুরকে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় করেছিলেন। তার গান আগামী প্রজন্মকে মুগ্ধ করবে। তার পরিবার ও ভক্তদের প্রতি সমবেদনা। ওম শান্তি।

সন্তুর বাজানোর পাশাপাশি পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়ার সঙ্গে মিলে ‘শিব-হরি’ নামে বিভিন্ন ছবির সঙ্গীত পরিচালনাও করেন পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা। উল্লেখযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে বলিউডের কালজয়ী সিনেমা ‘সিলসিলা’, ‘লমহে’, ‘চাঁদনি’।

১৯৩৮ সালের ১৩ জানুয়ারি জম্মুর একটি সম্ভ্রান্ত সঙ্গীতজ্ঞ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা। তার বাবা উমা দত্ত শর্মা ছিলেন একজন নামী সংগীতশিল্পী। পাঁচ বছর বয়স থেকেই পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা তার বাবার কাছ থেকে সঙ্গীত ও তবলার প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করেন।

উমা দত্ত শর্মা সন্তুর নিয়ে অনেক গবেষণা করেন এবং সিদ্ধান্ত নেন যে তার ছেলেকে তিনি ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের সন্তুর বাদক হিসেবে গড়ে তুলবেন। সেই ভাবনা থেকেই পণ্ডিত শিবকুমার শর্মাকে ১৩ বছর বয়স থেকেই সন্তুরের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করেন তার বাবা। ১৯৫৫ সালে তৎকালীন বম্বেতে (মুম্বাই) পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা জীবনে প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে সন্তুর বাজান। এরপর আর তাকে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশেও ছড়িয়ে পড়ে তার খ্যাতি।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত