কেউ বের হচ্ছেন না প্রয়োজন ছাড়া, মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ জুলাই ২০২১, ১৫:২০ |  আপডেট  : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২১

করোনা সংক্রমণ রোধে দুই সপ্তাহের কঠোর বিধি-নিষেধ বা লকডাউনের প্রথম দিনে খুব কম মানুষ ঘরের বাইরে আসছেন। কিছু মানুষ প্রয়োজনে ঘরের বাইরে আসছেন। সরকারি আদেশ অমান্য করায় হচ্ছে মামলা ও জরিমানা।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর মিরপুর ১৪, ১২, ১১, ১০ ও ২ নম্বর এলাকার পাড়া-মহল্লা ও বাসস্ট্যান্ড এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

সকাল থেকেই রাজধানীর মিরপুর এলাকার মোড়ে মোড়ে বসেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চেকপোস্ট। এসব চেকপোস্টে পরিবহন দেখলেই গতি রোধ করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা জানতে চাচ্ছেন কেন বের হয়েছেন, কোথায় যাবেন। সুনির্দিষ্ট কারণ ও প্রমাণ দিতে পারলেই পরিবহনগুলো ছাড়া হচ্ছে চেকপোস্ট থেকে।

মো. লোকমান হোসেন মিরপুর ১৪ নম্বর থেকে যাচ্ছিলেন গাবতলী। ১০ নম্বর গোলচক্কর চেকপোস্টে ট্রাফিক সার্জেন্ট তার গতিরোধ করেন। তার কাছ থেকে জানতে চাওয়া হয় কেন ঘর থেকে বের হয়েছেন? লোকমান বলেন, একজনের কাছ থেকে টাকা ধার নিতে মিরপুর ১৪ নম্বর এসেছি। টাকা নিয়ে এখন বাসায় ফিরছি। ট্রাফিক পুলিশ আমাকে বলেন, ছোট কারণে ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না। এরপর আবার বাইরে এলে তখন জরিমানা করা হবে। প্রথমবারের মতো আমাকে সতর্ক করেছেন ট্রাফিক পুলিশ।

মিরপুর ১০ নম্বর এলাকায় মাস্ক না পেয়ে রিকশায় ঘুরছিলেন মো. নাঈম। ১০ নম্বর চেক পোস্টে তাকে জিজ্ঞেস করা হয় কেন ঘর থেকে বের হয়েছেন?

তিনি বলেন, মোবাইল ঠিক করেতে বের হয়েছি। মোবাইলের দোকান যে বন্ধ, আমার জানা ছিল না। প্রথমবারের মতো সতর্ক করে আমাকে ছেড়ে দেয়েছে পুলিশ। আগামীতে কারণ ছাড়া ঘর থেকে বের হলে জরিমানা ও মামলা করা হবে বলে হুঁশিয়ার করেছে।

কাফরুল থানার সাব-ইন্সপেক্টর আব্দুল জলিল বলেন, লকডাউনে মানুষজন অনেক কম ঘর থেকে বাইরে আসছেন। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। সরকারি আদেশ অমান্য করলেই করা হচ্ছে মামলা ও জরিমানা।  

তিনি আরও বলেন, সকাল থেকে দুপুর বারোটা পর্যন্ত মামলা হয়েছে সাতটি। জরিমানা করা হয়েছে ২১ হাজার টাকা। এছাড়াও ডাম্পিং করা হয়েছে একটি মোটরসাইকেল ও ছয়টি মোটর চালিত রিকশা।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) ভোর ৬টা থেকে শুরু হয়েছে ১৪ দিনের ‘কঠোর লকডাউন’। এ লকডাউন বহাল থাকবে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত। এর আগে ঈদুল আজহার সময় মানুষের চলাচল ও পশুর হাটে কেনাবেচার বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করেছিল সরকার। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ঈদের আগেই ১৩ জুলাই একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত