কাউনিয়ায় বাণিজ্যমন্ত্রীর এলাকায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল 

  সারওয়ার আলম মুকুল, কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১২ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৪৬ |  আপডেট  : ৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৩২

রংপুর-কুড়িগ্রাম মহাসড়কের কাউনিয়া অংশে ভেলুপাড়া থেকে তিস্তা সড়ক সেতু পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং ভেঙ্গে বড় বড় গর্ত, আর বড় বড় টিউমার এবং রাস্তার পাশে মাটি না থাকায় যানবাহন চলাচল মারাত্মক ঝুকিপুর্ন হয়ে পড়েছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যাত্রী সাধারন। সরেজমিনে দেখা গেছে তিস্তা সড়ক সেতু থেকে ভেলুপাড়া পর্যন্ত প্রায় ৪ কিঃমিঃ সড়কে করপেটিং উঠে গিয়ে বড় বগ গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সংস্কারের নামে সড়ক বিভাগ পিচঢালা পথে জোরা তালি দিয়ে হেরিংবন্ড রাস্তা করছে। খানাখন্দে ভরা আর রাস্তার দু-পাশে মাটি না থাকায় তা এখন মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। এক থেকে দেড় ফুট পর্যন্ত রয়েছে পাকা সড়ক থেকে পাশের মাটির রাস্তার গভীরতা। ফলে গাড়ী ওভার ট্রেকিং ও সাইট দিতে গিয়ে যানবাহন গুলোর চাকা পাশের গভীরতায় পড়ে গিয়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। 

সড়ক দুর্ঘনায় প্রানহানি সহ আহত হওয়ার ঘটনা এখন নিত্য নৈমিওিক ব্যাপার। একটি পরিসংখ্যান মতে গত ৬মাসে এই সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেছে প্রায় শতাধিক। এতে কত মানুষের রক্ত ঝড়েছে, কত মানুষ পঙ্গুত্ব বরণ করেছে এবং কত মানুষের মৃত্যু হয়েছে সেই পরিসংখ্যান কেউ রাখে না। দীর্ঘদিন থেকে যাত্রীসাধারন সহএলাকার মানুষ রাস্তাটি সংস্কারের দাবী জানিয়ে আসলেও তা কর্তৃপক্ষের নজরে আসে না। অনেকেই বলছেন আর কত প্রাণ ও রক্ত ঝড়লে এই গুরুত্বপূর্ণ মহা সড়কটি সংস্কার করা হবে। এই সড়ক দিয়ে এতো মন্ত্রী, এমপি, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা যাতায়ত করেন তাদের চোখে কি রাস্তার বেহাল দশার চিত্র নজরে পড়ে না ? একজন আক্ষেপ করে বলেন, উন্নয়ন মহাসড়কের নামে পিচঢালা পথ হচ্ছে এখন হেরিং বন্ড। এই সড়কে দুর্ঘটনার চিত্র প্রতিদিনের ব্যাপার হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে এসব পড়ছেনা। 

কাউনিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিনা তারিন বলেন রাস্তাটির ব্যাপারে জেলার মিটিং এ বলি, তাদের একটাই জবাব, অর্থ বরাদ্দ পেলেই রাস্তার কাজ হবে। ব্যবসায়ী শাহ আলম বলেন কত বছর ধরে শুনছি এই রাস্তা  ৪লেন হবে, সেই  ৪লেনতো দুরের কথা, যে রাস্তা আছে সেটি সংস্কার হয় না। 

ইজি বাইক চালক জাহেদুল, কলেজ শিক্ষক হিমেল, ছাত্রী কাকলী সহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন, মহাসড়টি বর্তমানে চলাচলের সম্পূর্ন অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মায়া জানান বিষয়টি জেলা সমন্বয় মিটিংএ উপস্থাপন করেছি, সড়ক বিভাগ কোন কাজ করছে না। 

সড়ক জনপথ বিভাগের রংপুর জেলার নির্বাহী প্রকৌশলৗ বলেন রাস্তার অবস্থা খারাপ এটা ঠিক আমরা আপাতত ইট বিছিয়ে রাস্তার যোগাযোগ ঠিক রাখার চেষ্টা করছি। বুড়িমারি থেকে পাথরের ট্রাকগুলো বেশী রাস্তা নষ্ট করছে। কবে রাস্তার কাজ শুরু হবে তার কোন সঠিক উত্তর নাই। এলাকাবাসী রাস্তাট দ্রুত সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন।
 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত