অবৈধ বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয় চক্রের দুই সদস্য আটক 

  নওগাঁ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১১:৫৭ |  আপডেট  : ৯ মে ২০২২, ২৩:৩৫

নওগাঁয় অবৈধ বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয় চক্রের মূল হোতাসহ দুইজনকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ এবং জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই)। শনিবার (২২ জানুয়ারি) শহরের গোস্তহাটির মোড় ও আত্রাই উপজেলার চৌড়বাড়ী গ্ৰামে যৌথ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটক ব্যক্তিরা হলেন, আত্রাই উপজেলার চৌড়বাড়ী গ্রামের আব্দুস শুকুর ছেলে সারোয়ার হোসেন ডলার (৩০) এবং একই গ্রামের সামসুল আলম খন্দকারের ছেলে রাকিবুল ইসলাম খন্দকার রকি (২৫)।রোববার (২৩ জানুয়ারি) সকালে ডিবি পুলিশ কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রাকিবুল এবং সারোয়ার দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার তথ্য জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা পায়। অভিযোগের প্রেক্ষিতে এনএসআই এবং ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে আত্রাই উপজেলার চৌড়বাড়ী গ্রাম থেকে রকিকে আটক করে। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিটকয়েন চক্রের সমন্বয়কারী ডলারকে নওগাঁ শহরের গোস্তহাটির মোড় থেকে আটক করে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সর্বশেষ বিটকয়েন বিক্রির এক লাখ ৮২ হাজার ইউএস ডলার যার মূল্যমান প্রায় এক কোটি ৫৬ লাখ টাকা লেনদেনের জন্য সারোয়ার ব্যাংক এশিয়ার মাস্টার কার্ড (নম্বর- ৫৪১১৭৩০১০০৩১২৮৬১) ব্যবহার করেন। বিটকয়েন বিক্রয় হলে অ্যাকাউন্টে অনেক টাকা জমা হবে লোভ দেখিয়ে তারা অনেকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়। এছাড়া একটি বিটকয়েনের জন্য তারা ৩৫ লাখ টাকা নিতো। এই বিটকয়েন ক্রয়ের জন্য তাদের টাকার প্রয়োজন বলে লোকজনদের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা নেয়। এতে ভুক্তভোগীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দীর্ঘদিন ধরে বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয়ের সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেছে।

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, বিটকয়েন ক্রয়-বিক্রয়ের নামে মানুষের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে আটক দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আজ রোববার দুইজনকে আদালতে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, বিটকয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সি হল বাইনারি উপাত্তের একটি সংকলন যা বিনিময়ের মাধ্যম হিসেবে কাজ করে। এর অস্তিত্ব শুধু ইন্টারনেট জগতেই বিদ্যমান। এটি ব্যবহার করে লেনদেন শুধু অনলাইনেই সম্ভব যার। পুরো কার্যক্রম গুপ্তলিখন নামক একটি সুরক্ষিত প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হয়। ২০১৭ সাল থেকে এটি একটি উঠতি বাজারে পরিণত হয়েছে।

বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী বিটকয়েন বা অন্য কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সি কেনাবেচা বা সংরক্ষণ করা বেআইনি। 

২০১৭ সালে বাংলাদেশ ব্যাংক বিটকয়েনে লেনদেনের ব্যাপারে সতর্কতা জানিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত