নিউইয়র্কে শিতাংশু গুহের দুই বইয়ের মোড়ক উম্মোচন

   যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১২ জুন ২০২২, ২০:৪৫ |  আপডেট  : ২৬ জুন ২০২২, ১১:১৯

সাংবাদিক-লেখক শিতাংশু গুহ রচিত “করোনার কথা” ও “জন্ম থেকে জ্বলছি’’র প্রকাশনা উৎসব হলো গত রবিবার (৫ জুন) নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে জুইশ সেন্টারে। বিপুল সংখ্যক অভিবাসীর উপস্থিতিতে এ উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন একুশে পদক বিজয়ী লেখক ও মুক্তিযোদ্ধা ড. নুরুন নবী। সভাপতিত্ব করেন লেখক ও বুদ্ধিজীবী বেলাল বেগ এবং উপস্থাপনায় ছিলেন কবি ফকির ইলিয়াস। 

অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতির পিতা, জাতীয় চার নেতা, ভাষা-শহীদ, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও সম্ভ্রমহারা নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। একই সাথে সীতাকুণ্ডের ডিপোতে আগুনে নিহত-আহতদের প্রতিও শ্রদ্ধা ও সমবেদনা জানানো হয়। এরপর বই দু’টির মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

ঢাকার বই মেলা ২০২১ এ “করোনার কথা” ও  ২০২২ এ “জন্ম থেকে জ্বলছি“ বই দুটি প্রকাশ করেছে ঢাকার অভিজাত ‘আগামী প্রকাশনী’। লেখক শিতাংশু গুহ সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বই দু’টি প্রকাশের পটভূমি ব্যাখ্যা করেন। তিনি জানান, ‘করোনার কথা’ মূলত: করোনা-কালীন নিউইয়র্কে যে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি বিরাজ করছিলো এতে তা বিধৃত আছে। আছে বহু মৃত্যু ও বেঁচে থাকার কাহিনী। বাংলাদেশ ও অন্যান্য দেশের ঘটনা এবং অতীত মহামারীর ইতিহাস আছে। এতে বেশ ক’জন ডাক্তারের কথাবার্তা এবং তাদের অভিজ্ঞতা বর্ণিত হয়েছে। লেখকের মতে বইটি ট্রাজেডীময় এবং একটি প্রামাণ্য দলিল।

প্রধান অতিথি ড. নূরন নবী শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপস্থিত হতে না পারলেও টেলিফোনে তার বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, শিতাংশু গুহ একটি আদর্শ নিয়ে গণমানুষের পক্ষে কাজ করছেন। তিনি মানুষের অধিকার নিয়ে সোচ্চার। 

অনুষ্ঠানে ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’ বইটি’র ওপর মূল আলোচনা করেন স্টেট ইউনিভার্সিটি অব নিউইয়র্কের (ওল্ড ওয়েস্টবেরী ক্যাম্পাস) প্রফেসর ড. সব্যসাচী ঘোষ দস্তিদার। তিনি বলেন, আমি নিজেই একজন উদ্বাস্তু। তাই আমি দেশহীন মানুষের বেদনা বুঝি। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মিডিয়াগুলো নির্যাতিতদের কথা যতোটা লিখতে পারে- কলকাতার মিডিয়াগুলো ততটা পারে না, পারছে না। বরং তারা অনেক কিছুই চেপে যায়। তিনি বলেন, শিতাংসু গুহ যেন আমার কথাগুলোই বলেছেন। 

ড. দস্তিদার বলেন, লেখক যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছেন, তা কেউ করতে চান না, বা শুনতে চান না, অথবা মানতে চান না। অথচ ঘটনা ঘটছে। বুঝতে হবে লেখক কেন জন্ম থেকে জ্বলছেন।

‘করোনার কথা’ বইয়ের মূল আলোচক ছিলেন লেখক ডাক্তার সুভাষ শিকদার। তিনি চিকিৎসক হিসেবে তার অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করেন। বলেন, এই দাগচিহ্নটি শিতাংশু গুহ লিখে রেখেছেন আগামী প্রজন্মের জন্য। বইটি ইংরেজিতে অনুবাদের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। 

ডাক্তার সুভাষ শিকদার বলেন, করোনা নিয়ে ঘটনাবলী লেখক সুন্দরভাবে ফুটিয়েছেন, যা হয়তো ভবিষ্যতে গবেষণায় সাহায্য করবে। তিনি বলেন, ডাক্তারদের যে কাজটি করার কথা, তা করেছেন শিতাংশু গুহ, তাঁকে ধন্যবাদ।

সাবেক উপাচার্য ড. দুর্গাদাস ভট্টাচার্য্যের লিখিত বক্তব্যটি পড়ে শোনান ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি’র সাধারণ সম্পাদক স্বীকৃতি বড়ুয়া। লিখিত বক্তব্যে ড. দুর্গাদাস ভট্টাচার্য্য ‘করোনার কথা’ বইয়ের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সভাপতির বক্তব্যে বেলাল বেগ বলেন, আমাদের বড় পরিচয় আমরা মানুষ। আর এই পরিচয় ধরে রাখতে না পারলে আমরা পরাজিত হবো। দেশে বিদেশে আমাদের সম্প্রীতির বন্ধন ধরে রাখতে হবে। একই যাথে যারা মানুষের উপর হামলে পড়ে তাদের প্রতিরোধ করতে হবে। মনে রাখতে হবে, আমাদের মূল চেতনা সেই একাত্তর সাল। প্রায় তিন ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠানের বাইরে হলরুমে বই দুটির বিপণনের ব্যবস্থা ছিল।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত