ভাগ্য বদলের দৃষ্টান্ত

গরুর খামার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে কাউনিয়ার দুদু মিয়া  

  সারওয়ার আলম মুকুল, কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২২, ১৯:৩১ |  আপডেট  : ১১ আগস্ট ২০২২, ১৪:৪১

বেকার যুবক-যুবতীদের চাকরী নামক সোনার হরিনের পিছে না ছুটে খামার করে নিজের এবং অন্যের কর্মসংস্থান সৃষ্টির আহবান জানিয়েছেন দুদু মিয়া। কাউনিয়ায় গরুর খামার করে সফলতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন খামারী দুদু মিয়া। সরেজমিনে উপজেলার টেপামধুপুর চরগনাই গ্রামে খামারে গিয়ে কথা হয় দুদু মিয়ার সাথে। তিনি জানান তিস্তা নদীর ভাঙ্গনে আবাদী জমি হারিয়ে হতাশায় পরেন তিনি। তার স্ত্রীর পরামর্শে ৩টি গরু দিয়ে ২০১৪ সালে প্রথম খামার শুরু করেন। প্রথমের দিকে তেমন লাভ না হলেও ধীরে ধীরে তার খামারে লাভ বাড়াতে থাকেন। বর্তমানে তার খামারে ৬টি দুধের গরু ও ১৮টি ষাঁড় গরু রয়েছে। তিনি স্বপ্ন দেখেন ষাড় গরু গলোকে কোন মোটাতাজা করন পদ্ধতি ব্যবহার না করে দেশীয় পদ্ধতিতে বড় করবেন। যেই কথা সেই কাজ। শুরু করেন তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে পরিশ্রম। স্বপ্ন বাস্তবায়নে তাকে সহযোগিতা করেছে তার স্ত্রী ও তার ছোট ভাই। 

নজরুল ইসলাম জানায় দেশীয় খাবার দিয়ে এবং ইনজেকশন না দিয়ে গরু বড় করা সম্ভব সেটি আমি প্রমান করতে চেয়েছি, সেই সাথে বেকার যুবকদের বুঝাতে চেয়েছি চাকরীর পিছে না ছুটে সৎ ভাবে একাগ্রতার সাথে নেক নিয়তে খামার করলে সে অন্যকে চাকরী দিতে পারবে। তিনি বর্তমানে প্রতিদিন ৩০ লিটার দুধ বিক্রি করেন। এবং কোরবানীর ঈদে ষাঁড় গরু গুলো বিক্রি করবেন। তার আশা কমপক্ষে গরু গুলো ২২ থেকে ২৫ লাখ টাকা বিক্রি হবে। তার খামারে প্রতি মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় হয়। এর মধ্যে ২ জন কর্মচারীর বেতন, গরুর খাবার, বিদ্যুৎ বিল বাবাদ খরচ হয় ২০ হাজার টাকা। প্রতিমাসে আয় হয় ১০ হাজার টাকা। ২ লাখ টাকা দিয়ে খামার শুরু করে এখন তার খামরে প্রায় ৫০ লাখ টাকার গরু আছে। তিনি ২০ শতক জমিতে গরুর খাদ্যর জন্য ঘাস চাষ করেছেন। বর্তমানে ঘাসের ব্যপক চাহিদা রয়েছে, যাদের জমি আছে তারা ঘাস চাষ করেও আয় করতে পারেন। কৃষি বিভাগের সহায়তায় তিনি গরুর গোবর দিয়ে নতুন করে কেচো সার তৈরীর চিন্তা করেছেন। তিনি আশা করছেন এখান থেকে তার বার্তি ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা আয় হবে। তিনি জানান একগ্রতার সাথে ধর্য্য নিয়ে খামার করলে সফলতা অবশ্যই আসবে। 

উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সিি তা রহমান জানান, দুদু মিয়া একজন সফল খামারী। পুষ্টির চাহিদা পুরনে তিনি এলাকায় অবদান রাখছেন, সেই সাথে নিজের ও অন্যের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছেন। দেশীয় পদ্ধতিতে তিনি ১৮টি গরু বড় করেছেন। তিনি একজন সফল খামারী। দুদু মিয়া কাউনিয়ায় এখন একজন সফল গরুর খামারী হিসেবে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।


 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত