আছে করোনার চোখরাঙানি, তবু আজ মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএল

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ৯ এপ্রিল ২০২১, ১০:৩৬ |  আপডেট  : ৭ জুন ২০২৪, ১১:৩৬

ভারতে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে প্রতিদিন। মুম্বাই, চেন্নাইয়ের মতো শহর হয়ে উঠেছে করোনার আঁতুড়ঘর। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ভেন্যুর তালিকায় আছে সেই সব শহরও। ফলে করোনার চোখরাঙানি নিয়েই আজ থেকে মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএল। শুরুর ম্যাচে আজ টানা দুইবার সহ পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মুখোমুখি হচ্ছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

করোনার মধ্যে হয়েছিল গেলবারের আইপিএলও। শুরুতে এপ্রিল থেকে পিছিয়ে দেওয়া হলেও শেষমেশ বছরের শেষ ভাগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে মাঠে গড়িয়েছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি আসর আইপিএল।

তবে সেবারের সঙ্গে আইপিএলের ১৪তম আসরের বাস্তবতা ভিন্ন। সেবার যখন আইপিএল মাঠে গড়িয়েছিল, আমিরাতে করোনার সংক্রমণ এতটা প্রকট ছিল না, যেমনটা এবার হচ্ছে ভারতে। গতকাল বৃহস্পতিবারই যেমন নিজেদের রেকর্ড ভেঙে ১ লাখ ২৭ হাজারের মতো মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। যার একটা বড় অংশ আক্রান্ত হয়েছেন মুম্বাইয়ে, গতকাল মোট আক্রান্তের ৫৬ ভাগ ছিল এই রাজ্যে। এখানেই কিনা আছে আইপিএলের দুটো ভেন্যু।

তবে আসরটি হচ্ছে কঠোর জৈব সুরক্ষা বলয় মেনে, যা কিছুটা আশা দিতে পারে খেলোয়াড়দের। সে আশা অবশ্য মিইয়ে যাওয়ার যোগাড় হতে পারে পরের তথ্যেই। কঠোর জৈব সুরক্ষা বলয়েও যে আক্রান্ত হচ্ছেন খেলোয়াড়, স্টাফ ও সংশ্লিষ্টরা।

তবে টুর্নামেন্ট কমিটি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ, যে কোনো পরিস্থিতিতে চলতি আইপিএল আসর মাঠে গড়ানোর ব্যাপারে। ইউরোপে করোনা সংক্রমণ স্বত্বেও তো হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, স্থানীয় লিগের মতো আসরগুলো। তাহলে জৈব সুরক্ষা বলয় মেনে আইপিএলে সমস্যা কোথায়?

করোনার কারণে মানতে হচ্ছে নতুন নিয়মও। দেশের মাটিতে এবারই প্রথম টুর্নামেন্টটি হচ্ছে দর্শকহীন স্টেডিয়ামে। ‘হোম-অ্যাওয়ে’ পদ্ধতিতেও এসেছে পরিবর্তন। নিজেদের মাঠে খেলার সুযোগ নেই কোনো দলের। সব খেলা হবে আহমেদাবাদ, দিল্লি, মুম্বাই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু ও কলকাতায়।

এতোসব জটিলতার বেড়াজালেও অবশ্য মাঠের ক্রিকেটে আছে যথেষ্ট মনোযোগ। চেন্নাই সুপার কিংস তো এক মাস আগে থেকেই নেমে পড়েছে অনুশীলনে। সে তুলনায় খানিকটা দেরিতে হলেও কোয়ারেন্টাইন-অনুশীলনের জন্য যথেষ্ট সময় পেয়েছে বাকি দলগুলো।

আজ মুখোমুখি হচ্ছে যে দুই দল, তাদের একটির সামনে আবার হ্যাটট্রিক শিরোপার হাতছানি। পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়নরা এবারও হট ফেভারিট। যাদেরকে ভারতীয় দলের চেয়েও শক্তিশালি মনে করছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন।

সে দলটাকে থামাবে কে? উত্তরে উঠে আসছে দিল্লি ক্যাপিটালস, বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর নামও। সান রাইজার্স হায়দ্রাবাদ, সাকিব আল হাসানের কলকাতা নাইট রাইডার্সও আলোচনায় আছে ভালোভাবেই। কিংবা আইপিএল বিশেষজ্ঞ চেন্নাই সুপার কিংসকেই কীভাবে আলোচনা থেকে বাদ দেবেন আপনি? সব মিলিয়ে করোনার চোখরাঙানি থাকলেও মাঠের আইপিএল আভাস দিচ্ছে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতারই।

গেলবার আইপিএলে ছিল না বাংলাদেশের কোনো প্রতিনিধিত্ব। তবে সেটা ঘুচে যাচ্ছে এবার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সাকিব আল হাসান ফিরছেন এবার। গেলবার অনাপত্তিপত্র না পাওয়া মুস্তাফিজুর রহমানও এবার বোর্ডের সবুজ সঙ্কেত পেয়ে খেলছেন আইপিএলে, তাকে দেখা যাবে এবার রাজস্থান রয়্যালসের জার্সি গায়ে। সাকিবের কলকাতা প্রথম ম্যাচটা খেলবে আগামী রোববার, তার সাবেক দল সান রাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে। আর মুস্তাফিজের রাজস্থান খেলবে আগামী সোমবার, বদলে যাওয়া পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত