অস্ট্রিয়াতে রেস্তোরাঁ ব্যাবসায় সফল ঢাকার মিলন মিয়া

  জাকির হোসেন সুমন, ব্যাুরো চীফ ইউরোপ  

প্রকাশ: ৩১ জুলাই ২০২২, ১৪:৩৩ |  আপডেট  : ১২ আগস্ট ২০২২, ২৩:১৩

কঠোর পরিশ্রম, ইচ্ছেশক্তি ও সততা থাকলে যে সফল হওয়া যায় তার উদাহরন অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় বসবাসরত ঢাকার খিলগাঁওয়ের মো : মিলন মিয়া। রেস্তোরাঁ ব্যাবসা দিয়ে তিনি যেমন প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন, তেমনি করেছেন তার প্রতিষ্ঠানে বহু বাংলাদেশীর কর্মসংস্থান । 

ভাগ্য বদলের আশায় ২০০২ সালে অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় পারিজমান ঢাকার খিলগাঁওয়ের  মো: মিলন মিয়া।  ৭ বছর অন্যের  প্রতিষ্ঠানে কঠোর  পরিশ্রম করেন ভাগ্য বদলের আশায়।  সে সময় থেকেই  অর্থ  জমাতে থাকেন অন্যের  প্রতিষ্ঠানে বেশিদিন কাজ করা যাবেনা ,  নিজের কিছু একটা করতে হবে।  সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে আরো ৩ বাংলাদেশী কে সাথে নিয়ে ৪ জনে যৌথ মালিকানায়  ভিয়েনাতে মিলন  রেস্তোরাঁ ব্যাবসা শুরু করেন  ২০১০ সালে।

 প্রথম দিকে একজন বাংলাদশী হিসেবে  ব্যাবসা শুরু করলে কিছুটা বেগ পেয়ে হয়েছে। কঠোর পরিশ্রম, সততা  ও মনের শক্তি পুঁজি  থাকায়   আস্তে আস্তে  তাদের ব্যাবসা  জমে উঠে । এরপর ২০১০ সালে একক মালিকানায় পিচ্ছা মিলানো  নামে  আরেকটি রেস্তোরাঁ  চালু করেন তিনি ।  সেই প্রতিষ্টান গুলোতে ২৭ জনের কর্মসংস্থানের ব্যাবস্হা করেন তিনি  তার মধ্য ১৯ জন বাংলাদেশীর কর্মসংস্থান হয়েছে তার প্রতিষ্ঠানে।  মিলন মিয়া জানান,  বর্তমানে তার দুই টি  প্রতিষ্ঠানে ২৮ হাজার জন  নিয়মিত খাবার খেয়ে থাকেন।  চলতি বছরের ডিসেম্বরে  তার তৃতীয় রেস্তোরাঁ  উদ্ভোধন হতে যাছে ,  সেখানেও  ১৭ জনের কর্মসংস্থানের ব্যবস্হা করবেন তিনি। 

   করোনা কালিন সময়ে  অন্যানো ব্যবসায়ীদের ব্যাবসা খারাপ গেলেও হোম ডেলিভারী দেবার কারনে জমজমাট ব্যাবসা  হয় তার প্রতিষ্ঠানে।  মিলন মিয়া জানান,  আগামী বছর চেষ্টা থাকবে   অস্ট্রিয়ার খাবারের ন্যায় নিজ মাতৃভূমি  বাংলাদেশও একটি রেস্তোরাঁ চালু করার। মিলন মিয়ার সপ্ন দেখেন  অস্ট্রিয়ার মাটিতে তার মতো আরো অনেক বাংলাদেশী মালিকানাধীন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে,  নিজেদের উন্নয়ের পাশাপাশি  কর্মসংস্থানের ব্যবস্হা হবে  বাংলাদেশীদের, তাদের পাঠানো রেমিট্যান্স  দিয়ে আরো এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ ।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত