রাতের আধাঁরে ব্যতিক্রমভাবে “মেআভা” পৌঁছে দিচ্ছে ঈদ উপহার 

  ইসমাইল হোসেন, জেলা প্রতিনিধি, মেহেরপুরঃ

প্রকাশ: ৯ মে ২০২১, ১৭:৫২ |  আপডেট  : ১২ মে ২০২৪, ১৬:১২

মেহেরপুরে ব্যতিক্রমভাবে রাতের আধাঁরে “মেহেরপুর আ লিক ভাষা” (মেআভা) ফেসবুক গ্রæপ সংগঠনের পক্ষ থেকে পৌঁছে দিচ্ছে ঈদ উপহার। 

জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত লক ডাউনের কারণে মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ায় মেআভা’র পক্ষ থেকে গোপনীয়তার সহিত তালিকা করে মেহেরপুর জেলার গাংনী, মুজিবনগর ও মেহেরপুর সদর উপজেলায় গত দু’দিন ধরে রাতের আধাঁরে অসহায় পরিবারের দরজার সামনে মেআভা লেখা ব্যাগের মাধ্যমে আর্কষনীয় ঈদ উপহার হিসাবে পৌছে দেওয়া হচ্ছে। 

এবিষয়ে মেআভা ফেসবুক গ্রুপের প্রধান এ্যাডমিন সুমন রেজা ও অন্যতম এ্যাডমিন রুপম আজিম বলেন, বাংলাদেশে দ্বিতীয় ধাপে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়ে যাওয়ার কারণে যখন লক ডাউন ঘোষনা করা হয়েছে তখন থেকে আমরা গভীরভাবে লক্ষ্য করেছি অনেক অসহায় ব্যক্তি, নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের অনেকে তাদের সংসারের খারাপ অবস্থার কথা বলতে না চাওয়ার কারণে আমাদের মেহেরপুর আ লিক ভাষা মেআভা ফেসবুক গ্রুপ সংগঠনের মাধ্যমে, মেহেরপুর জেলার তিনটি উপজেলায় নিহাত অসহায়, নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের তালিকা করা হয়। আমাদেরকে যারা অর্থনৈতিক ভাবে সহযোগিতা করেছিল এবং আমাদের গ্রুপের সকলের সহযোগিতায় সামর্থ্য অনুযায়ী মেআভা লেখা ব্যাগের মাধ্যমে ঈদ উপহার হিসাবে রাতের আধাঁরে অসহায় ব্যক্তির ঘরের দরজার সামনে রেখে চলে আসি। দরজা খুলে তারা ঈদ উপহারটি পায়। যাতে তারা নিজেকে ছোট না মনে করে, তার জন্যই এই ব্যবস্থা। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজনের সাথে কথা বলতে গেলে তার দু’চোখ জুড়ে অশ্রæ গড়িয়ে পড়া অবস্থায় তিনি বলেন, সামনে ঈদ বুঝে উঠতে পারছিলাম না কিভাবে ঈদ করব। গভীর রাতে ঘরের দরজা খুলতেই দেখি মেআভা লেখা লাল একটি ব্যাগে ঈদ উপহার। ব্যাগটি খুলেই দেখি ঈদের প্রয়োজনীয় সব কিছুই রয়েছে। চাল, ডাল, আটা, সেমাই, তৈল, লবন, চিনি, সাবান ও একটি শাড়ী। ব্যাগটি পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত। তাকে কান্নার কথা জিজ্ঞাসা করলে উত্তরে বলে এ কান্না কষ্টের নয় আনন্দের। ঈদ উপহার পৌঁছে দিতে সহযোগীতা করছে মেহেরপুর আ লিক ভাষা “মেআভা” ফেসবুক গ্রুপের এ্যাডমিন জাকির হোসেন, মোঃ সাবিত, সোহাগ রানা, রাকিবুল ইসলাম, রাশেদুল ইসলাম, সাধন সরকার নন্দ প্রমূখ  
 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত