রংপুরে চালু হলো বিআরটিসির বাস

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭:০৩ |  আপডেট  : ২১ জুন ২০২৪, ০১:১৭

রংপুরে চালু হয়েছে সিটি বাস সার্ভিস। সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরীর সিও বাজারে বিআরটিসির দুটি বাস চালুর মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করা হয়। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুজ্জামান সিটি বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার তার বক্তব্যে বলেন, রংপুরে সিটি বাস সার্ভিস মহানগরবাসীর অত্যাবশ্যকীয় অংশ। আমরা প্রথম পর্যায়ে সিটি সার্ভিস চালু করেছি এখন গ্রাহকদের চাহিদা ও ভালোবাসায় এটি স্থায়ী রূপ নেবে। এখন দুটি বাস দিয়ে সিটি সার্ভিস চালু করা হলেও পর্যায়ক্রমে বাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা সিটি কর্পোরেশন, মটর মালিক, শ্রমিক ইউনিয়ন, বিআরটিএ ও বিআরটিসিসহ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে মহানগরের উন্নয়ন করতে চাই। সেবার মান বাড়াতে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। সিটি বাস চলাচলে অন্য কোনো পরিবহনের ক্ষতি হবে না বলেও জানান তিনি।

বিআরটিসি রংপুর ডিপো সূত্রে জানা গেছে, সিটি বাস সার্ভিস নগরীর সিও বাজার, মেডিকেল মোড়, বাস টার্মিনাল, শাপলা, তাজহাট ও সাতমাথা রুটে চলাচল করবে। এসব স্থানে টিকিট কাউন্টার থাকবে ও যাত্রী ওঠানামা করবে। সীমিত টিকেট মূল্যে যাত্রীরা এই সেবা গ্রহণ করবেন। সিটি বাসে ৪৫ জন যাত্রী বসতে পারবেন।

শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ টিকেট, প্রতিবন্ধী ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আসন সংরক্ষিত থাকবে। সিটি বাস সার্ভিসের সর্বনিম্ন ভাড়া ধরা হয়েছে ১০ টাকা। পর্যায়ক্রমে বাসের সংখ্যা বাড়বে বলে জানা গেছে।  

এর আগে ২০১৯ সালের ২০ মে রংপুর মহানগরীতে বিআরটিসির ডাবল ডেকার বাস চলাচল কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছিলেন সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। তবে সিটি বাস সার্ভিস বলা হলেও বাস চারটি নগরীর মূল সড়কের বাইরে বাইপাস সড়ক দিয়ে পাগলাপীর-পীরগঞ্জ রুটে চলাচল করছে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন-বিআরটিসি রংপুর বাস ডিপোর ম্যানেজার (অপারেশন) সুলতান আলম জানান, রংপুর মহানগরীতে চলাচলের জন্য আজ (সোমবার) আনুষ্ঠানিকভাবে দুটি বাস চালু করা হয়েছে। যাত্রীদের চাহিদা বাড়লে প্রয়োজনে আরও বাস বাড়ানো যাবে। তবে এটি প্রশাসন, সিটি কর্পোরেশন, মটর মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়নের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করবে। এর আগে ২০১৯ সালে পাগলাপীর থেকে পীরগঞ্জ রুটে চলাচল সার্ভিস শুরু করা হয়েছিল। বর্তমানে ওই রুটে চারটি ডাবল ডেকার বাস চলাচল করছে।

অপরিকল্পিত ও অনিয়ন্ত্রিত ইজিবাইক ও ব্যাটারি চালিত রিকশা একমাত্র বাহন হওয়ায় নগরে প্রতিনিয়ত সৃষ্টি করছে তীব্র যানজটের। চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন নগরবাসী। এ পরিস্থিতিতে গত বছরের অক্টোবরে রংপুর নগরীর যানজট নিরসনে সিটি বাস সার্ভিস চালুর ঘোষণা দেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুজ্জামান।

এই ঘোষণার পরপরই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন তিন চাকার ব্যাটারিচালিত মালিক ও চালকরা। সিটি বাস চালুর সিদ্ধান্ত বাতিলসহ অটোরিকশা ও চার্জার অটোরিকশা মালিক-শ্রমিকদের ৯ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ২০২৩ সালের ১০ অক্টোবর রংপুর নগরীতে বিক্ষোভ, রাস্তা অবরোধসহ অনশন কর্মসূচি পালন করেন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চালক ও মালিকরা। অবরোধ চলাকালে একটি বাসও ভাঙচুর করে তারা। অবশেষে সম্মিলিত উদ্যোগে দীর্ঘদিন পর আবারও সিটি বাস সার্ভিস চালু হওয়ায় আনন্দিত নগরবাসী।

'সুশাসনের জন্য নাগরিক' (সুজন) রংপুর জেলা সভাপতি আকবর হোসেন বলেন, ২০১৯ সালে এ রকম সিটি বাস সার্ভিসের জন্য উদ্বোধন করা হলেও বিভিন্ন অজুহাতে সেই সেবা চালু করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। পরে রুট পরিবর্তন করে শুধু পাগলাপীর-পীরগঞ্জ রুটে ওই বাসগুলো চলাচল করছে। এবার ৪ বছর পর সিটি বাস সার্ভিস চালু করা হয়েছে, এটি নিঃসন্দেহে নগরবাসীর জন্য ভালো। তবে, আগের মতোই যেন এই সেবা উদ্বোধন আর পরিকল্পনাতেই সীমাবদ্ধ না থাকে। অনিয়ন্ত্রিত ইজিবাইকের লাগাম টানাসহ সঠিক পরিকল্পনা সিটি বাস সার্ভিস বাস্তবায়ন করতে হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার ( ট্রাফিক) মেনহাজুল আলমের সভাপতিত্বে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ও সাবেক প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু, মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সায়ফুজ্জামান ফারুকী ও উৎপল কুমার পাল, বিআরটিএ রংপুর বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল কুদ্দুস, বিআরটিসি রংপুর ডিপোর ম্যানেজার (অপারেশন) সুলতান আলম, মটর মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আফতাব উজ জামান লিপন, মটর শ্রমিক ইউনিয়নের জেলা ও বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক এমএ মজিদসহ অন্যরা বক্তব্য দেন।

 

সা/ই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত