মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী লৌহজংয়র হালিমা

  লৌহজং থেকে কাজী আরিফ

প্রকাশ: ২২ মে ২০২৩, ১২:০৭ |  আপডেট  : ১৪ জুন ২০২৪, ০৯:৫২

হালিমা তুস সাদিয়া তামিমা। মুন্সীগঞ্জের লৌহজং বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সে লৌহজং উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন তপন ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকা কাজী রুনা দম্পতির মেয়ে। 

তামিমা শিক্ষা ক্ষেত্রে বরাররই প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে যাচ্ছে। সম্প্রতি সে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ -২০২৩ মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী, শ্রেষ্ঠ গার্লস গাইড এবং নির্ধারিত বক্তৃতায় প্রথম স্থান অধিকার করে আবারো তার প্রতিভার বহিঃপ্রকাশ ঘটালো। 

এর আগে তামিমা ২০১৮ সালে মুন্সীগঞ্জ জেলার একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে কাব স্কাউটে শাপলা কাব অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। ২০১৭ সালে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র থাকাকালীন উপস্থিত বক্তৃতায় ঢাকা বিভাগে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে থাকাকালীন মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ কাব স্কাউট নির্বাচিত হয়েছে দুইবার। আন্তঃস্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়েছে। 

পুরস্কার হাতে হালিমা তুস সাদিয়া তামিমা

ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বরাবরই সে শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে আসছে। ৫ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষায় সে দিঘলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে লৌহজং সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছিল। সপ্তম শ্রেণিতে থাকাকালীন ২০২০ সালে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় দাবা খেলায় ঢাকা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন এবং বঙ্গবন্ধু কে জানো এবং বাংলাদেশ কে জানো প্রতিযোগিতায় ঢাকা বিভাগে ৩য় হয়েছিল।

তামিমা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে বাবা তোফাজ্জল হোসেন তপন বলেন, ছোটকাল থেকেই হালিমার পড়াশোনা ও কোন কিছু জানার প্রতি আগ্রহ বেশি। তাছাড়া শিক্ষাক্ষেত্রে এ ধরণের সাফল্য তার মায়ের অবদানও কম নয়। আমি মনে করি আমার মেয়ের এই অর্জন, মেয়ের আগ্রহ ও তার মায়ের সঠিক দিকনির্দেশনার ফসল। তাড়াছা বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ভূমিকাও উল্লেখযোগ্য।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত