'পর্যটনের বিকাশে বেসরকারি খাতকে স্পেস দিতে হবে'

  গ্রামনগর বার্তা রিপোর্ট

প্রকাশ: ৯ মার্চ ২০২২, ১৪:৩০ |  আপডেট  : ১৯ মে ২০২২, ২১:২২

দেশের পর্যটন খাতের উন্নয়নে বেসরকারি খাতকে কাজ করার স্পেস দিতে (সুযোগ) বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।তিনি বলেন, সরকার পর্যটন বিকাশে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা দেবে। এসব খাতে বেসরকারি খাতকে এগিয়ে আসতে হবে। তবে তাদের কাজ করতে যাতে কোনো সমস্যা না হয় সেটাও দেখতে হবে। তাদের নির্বিঘ্নে কাজের স্পেস দিতে হবে। বাংলাদেশ অপরূপ সৌন্দর্যের দেশ, অনেকেই এখানে আসতে চাইবে। আমাদের পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা এবং স্পটগুলো পরিচ্ছন্ন করতে পারলে অনেকেই দেশে ঘুরতে আসবে বলে আমি মনে করি।

বুধবার (৯ মার্চ) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ট্যুরিজম মাস্টার প্ল্যান নিয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

বিমান প্রতিমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, প্রেজেন্টেশনে দেশের পর্যটন স্পটগুলোর সম্ভাবনা দেখে ভালো লাগলো। আমাদের উচিৎ তাদের সুপারিশগুলোকে বাস্তবায়ন করে দেশের পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নেয়া।

এছাড়াও প্রতিমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমি প্রায়ই শুনি বিমানের প্লেন ভাড়া অন্যান্য এয়ারলাইন্স থেকে বেশি। অনুগ্রহ করে বিষয়টি দেখবেন।

প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, বাংলাদেশ ট্যুরিজমের জন্য সম্ভাবনাময় একটি দেশ। প্রতি বছর শীতের সময় আমাদের দেশে অতিথি পাখি আসে। যদি শুধুমাত্র গরমের জন্যই অতিথি পাখি আসতো তাহলে তারা দুবাই যায় না কেন? তারা দেশে আসে আমাদের মনোমুগ্ধকর প্রকৃতির জন্য।  সমুদ্র, পাহাড় পর্বত কি নেই আমাদের দেশে, আমাদের প্রকৃতি এমন সাজানো গোছানো যা যা দরকার সবই আছে এখানে।

দেশের পর্যটন ব্যবস্থার উন্নয়নের বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, পর্যটনের উন্নয়নে মাস্টারপ্ল্যান নিয়ে কাজ চলছে। আমরা কক্সবাজারের রানওয়ে বড় করছি, সব বিমানবন্দর উন্নয়নেও কাজ চলছে। আমাদের বিমানবন্দর সুইজারল্যান্ডের বিমানবন্দরের মতো হবে, লন্ডনের হিথ্রোর একজন যাত্রী বাংলাদেশে এসে দেখবে হিথ্রো থেকেও দেশের বিমানবন্দর সুন্দর।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত