গ্রামীণ নারীদের পিছনে ফেলে উন্নয়ন কখনোই সম্ভব নয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০২৩, ১২:২২ |  আপডেট  : ২১ মে ২০২৪, ১৪:১৭

শিল্পী- এস এম সুলতান

 

আজ বিশ্ব গ্রামীণ নারী দিবস। গ্রামের নারীদের অধিকার আর সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিবছর ১৫ অক্টোবরের আজকের এই দিনে পালিত হয় দিবসটি। প্রতিবারের মতো এবারও দিবসটি বাংলাদেশে পালিত হচ্ছে।

সভ্যতা আর প্রযুক্তির দিক দিয়ে উন্নয়নের ধারায় পৃথিবী এগিয়ে গেলেও পিছিয়ে রয়েছে গ্রামের জনগোষ্ঠী। বিশেষ করে গ্রামের নারী সমাজ। দেশীয় নারী সংগঠন নারীদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হলেও প্রতিবাদের সুরে এখনও তাল মেলাতে পারেনি গ্রামের নারীরা। আর তাই তাদের জন্যই আজকের এই দিবসটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।

 ইতিহাস থেকে জানা যায়, আন্তর্জাতিক গ্রামীণ নারী দিবস পালনের প্রস্তাব গৃহীত হয় ১৯৯৫ সালে। বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের চতুর্থ নারী সম্মেলনে ১৫ অক্টোবরকে স্বীকৃতি দেয়া হয় বিশ্ব  গ্রামীণ নারী দিবস হিসেবে।এরপর ১৯৯৭ সাল থেকে জেনেভাভিত্তিক একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘উইমেনস ওয়ার্ল্ড সামিট ফাউন্ডেশন’ দিবসটি পালনের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি পালন করে।


 
দিবসটি গ্রামীণ উন্নয়ন, খাদ্য নিরাপত্তা ও দারিদ্র্য দূরীকরণসহ নানা ক্ষেত্রে গ্রামীণ নারীদের ভূমিকার কথা স্মরণ করে দেয়। সেই সঙ্গে মনে করে দেয় গ্রামীণ নারীদের পারিবারিক নির্যাতন আর কর্মক্ষেত্রে নানা বৈষম্যকে। দেশের প্রায় অর্ধেক জনগণকে পিছনে ফেলে উন্নয়ন কখনোই সম্ভব না। 

 

সান

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত