করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুরা কি আদৌ আক্রান্ত হবে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২১, ২১:৩৫ |  আপডেট  : ১৫ জুন ২০২৪, ১৯:১২

দেশজুড়ে আছড়ে পড়েছে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ। এহেন পরিস্থিতিতে শিশুদের সুরক্ষা নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন। বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউয়ে ভোলবদল করে শিশুদের শরীরে মারাত্মক হামলা চালাবে আণুবীক্ষণিক জীবটি। এহেন পরিস্থিতিতে সোমবার কেন্দ্র সরকার সাফ জানিয়েছে যে, তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুদের শরীরে যে করোনা থাবা বসাবে তা নিয়ে এখনও কোনও প্রমাণ মেলেনি।

বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, করোনার প্রথম ঢেউয়ে বয়স্করা আক্রান্ত হয়েছিলেন বেশি। দ্বিতীয় ঢেউয়ে কম বয়সীদের শরীরে হানা দিতে দেখা যায় এই মারণ ভাইরাসটি। তারপর থেকে বেশ কয়েকবার রূপ বদলেছে আণুবীক্ষণিক জীবটি। মিউটেশনের ফলে আরও ভয়ানক হয়ে উঠেছে করোনা ভাইরাস। ফলে তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়লে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। এই জল্পনা নিয়ে এদিন নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে কেন্দ্র জানিয়েছে, যে তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুদের শরীরে যে করোনা থাবা বসাবে, তা নিয়ে এখনও কোনও প্রমাণ মেলেনি। এই বিষয়ে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দিল্লি এইমসের ডিরেক্টর রণদীপ গুলেরিয়া বলেন, “করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনার যে কথা বলা হচ্ছে তা তথ্য নির্ভর নয়। বাচ্চাদের শরীরে ভাইরাসটি থাবা নাও বসাতে পারে। সুতরাং এনিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।”
 
উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শিশুদের কি টিকা দিয়ে সুরক্ষিত করা সম্ভব? সাম্প্রতিক মহামারীকালে এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছেই। বিশেষত অভিভাবকরা এ নিয়ে চিন্তিত। স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, এই প্রতিষেধক শিশু শরীরের জন্য নয়। আবার কারও দাবি, বড় হওয়ার সময়ে শিশুদের শরীরে এমনিই কিছু স্বাভাবিক প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়, তাই টিকা অপ্রয়োজনীয়। এবার ভারত বায়োটেক অর্থাৎ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করোনা টিকা কোভ্যাক্সিনের উৎপাদনকারী সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রয়োজনীয় অনুমতি মিললে জুন থেকেই কোভ্যাক্সিনের ট্রায়াল শুরু হবে শিশুদের উপর।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত