একজনের বিরুদ্ধে স্কুল ছাত্রীসহ ১৬ জনকে যৌন হয়রানির করার অভিযোগ

  মোঃ হেদায়েতুল ইসলাম (উজ্জল)

প্রকাশ: ৫ জুলাই ২০২৩, ১৭:৪২ |  আপডেট  : ১৫ জুন ২০২৪, ১৯:২৮

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার পল্লীতে এক লম্পটের বিরুদ্ধে সপ্তম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ মিলেছে।  সামাজিক ভাবে সুবিচার না পেয়ে ঘটনার সাত দিন পর মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা আদমদীঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলা সদর ইউনিয়নের করজবাড়ি স্কুল পাড়ায়। বুধবার সকালে সরেজমিন জানা গেছে, করজবাড়ি স্কুল পাড়ার পিন্টু প্রামানিকের মেয়ে সপ্তম শ্রেনির স্কুল ছাত্রী সদ্য গত ঈদুল আজহার দুই দিন পূর্বে নিজ বাড়ির দুই বাড়ি পরের খলিয়ানে সাথীদের সাথে খেলা করছিল। এসময় বড় মা সম্পর্কীয় এক গৃহবধু ওই ছাত্রীকে তার কাজে সহযোগীতা  করতে বলে। সে খেলা বাদ দিয়ে ওই বড়মার বাড়িতে ঝাড়– দেওয়ার কাজ করছিল। এ সময় গৃহবধু এনজিও’র কিস্তি দেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে অন্যত্র চলে যায়। এই সুযোগে ওই পাড়ার সর্বজনের নিকট লম্পট হিসাবে পরিচিত ওয়াহেদ আলী ওরফে ধুমসা ওই ছাত্রীকে একা পেয়ে যৌন হয়রানি করা শুরু করে। সে ভয়ে চিৎকার করলে ওই লম্পট ছাত্রীকে ছেড়ে দেয়। তবে এই কথা কাউকে বললে পরে যে কোন সময় তাকে ধর্ষণ করার হুমকি দেয়। পরে ঘটনাটি পুরো পাড়ায় ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে কয়েক দফা সামাজিক বৈঠক হয়। সর্ব শেষ মঙ্গলবার বৈঠকের হয়। কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি। অবশেষে রাতে ওই ছাত্রীর বাবা আদমদীঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। 

এদিকে, প্রায় তিন মাস পুর্বে লম্পট ওয়াহেদ আলী ওই ছাত্রীর মাকেও কু- প্রস্তাব দিয়েছিল। সরেজমিন ওই পাড়ার ১০ গৃহবধু জানান, চরিত্রহীন ওয়াহেদ আলীর হাতে প্রায় ওই পাড়ার প্রায় ১৫ গৃহবধু ও যুবতী যৌন হয়রানীর শিকার হয়েছে। অভিযুক্ত ওয়াহেদ আলী ঘটনার পর থেকে আত্নগোপনে রয়েছে। 

এ বিষয়ে আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্য রেজাউল করিম রেজা অভিযোগ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করে বলেন, দ্রুত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত