36 C
Dhaka
Sunday, January 24, 2021
No menu items!

এবার ফাঁকা ঈদগাহে নেই ভালোবাসার আলিঙ্গন

নিউজ ডেস্ক: ঈদ উৎসবের অন্যতম একটি অনুষঙ্গ জামাতে নামাজ আদায়। ঈদের দিন ভোর বেলা ঈদগাহে গিয়ে নামাজের মাধ্যমে শুরু হয় ঈদ উৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা। নতুন কাপড় পড়ে শিশু-কিশোর, যুবক বুড়ো, পাড়া-প্রতিবেশী সবাই দল বেঁধে ঈদের নামাজ পড়তে পার্শ্ববর্তী ঈদগাহে যায়। নামাজ শেষে একে অপরের সঙ্গে কুশল বিনিময়, করমর্দন, কোলাকুলি করে বাসায় ফেরা। যুগ যুগ ধরে এমনটিই করে আসছে ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা।

কিন্তু মহামারি করোনাভাইরাসের থাবায় এবার ঈদগাহে নামাজ আদায় বন্ধ করতে হয়েছে। উন্মুক্ত স্থানে জনসমাগম না করার নির্দেশনা দিয়েছেন সরকার। যার ফলে ঈদের নামাজ পড়া হচ্ছে মসজিদে। সেই ক্ষেত্রেও বজায় রাখতে হয়েছে সামাজিক দূরত্ব।

নামাজ শেষে কোলাকুলি, করমর্দন না করারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারই আলোকে ঈদগাহে জামাত বন্ধ করা হয়েছে। জামাত হয়নি ঈদগাহেও। নামাজ শেষে দেখা যায়নি সেই চিরচেনা ভালোবাসার আলিঙ্গনও।

প্রতি বছর জাতীয় ঈদগাহ ময়দান ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুত করা হয়। যেখানে রাষ্ট্রপতি, প্রধান বিচারপতি, মন্ত্রী, এমপি, বিচারপতি, কূটনৈতিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা জামাতে অংশ নেন। এবার সেখানে জামাতের কোন প্রস্তুতি নেওয়া হয়নি। সাজানো হয়নি ঈদগাহের চারপাশ।

পুরান ঢাকার ঠাটারীবাজারের বাসিন্দা ওয়াহিদুল হক বলেন, ‘প্রতি বছর আমি জাতীয় ঈদগাহে গিয়ে নামাজ আদায় করি। মসজিদে তো দিনে পাচঁ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি। কিন্তু ঈদগাহে গিয়ে নামাজ আদায় না করলে ঈদের আনন্দই যেন পূর্ণতা পায় না এমন মনে হয়। তারপরও কি করার মহামারি থেকে বাচঁতে এটিও আমাদের মেনে নিতে হবে।’

প্রতি বছর মাঠ প্রস্তুত করেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পিয়ারু সর্দার অ্যান্ড সন্স ডেকোরেটর। এরই ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোজাম্মেল হক সারাবাংলাকে বলেন, ‘প্রতি বছর রমজানের শুরু থেকেই আমরা জাতীয় ঈদগাহ প্রস্তুতির জন্য কাজ করি। ঈদের তিন আগে নামাজের জন্য সম্পূর্ণভাবে মাঠ প্রস্তুত করে ফেলি। এবার করোনার কারণে ঈদ গাহে নামাজ সরকার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ কারনে ঈদগাহ সজ্জিতও করা হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘আমার পেশাগত জীবনের প্রায় ৪০ বছর ধরে জাতীয় ঈদগাহে নামাজ দেখে আসছি। ঈদগাহে নামাজ হয়নি এমন কোনো ঘটনা ঘটেছে বলে আমার মনে পড়ে না। প্রাকৃতিক দুর্যোগ থাকলে নামাজের জন্য জাতীয় ঈদগাহকে প্রস্তুত করা হতো। অতি বৃষ্টি বা ঝড় হলে নামাজ স্থান্তরিত করা হতো। কিন্তু এভাবে মাঠ প্রস্তুতির কাজ বন্ধ হয়ে যাবে এমনটি কখনো হয়নি। তারপরও মহামারি করোনা দূর হয়ে আবার স্বাভাবিক জীবন যাপন শুরু হোক আল্লাহর কাছে এই প্রার্থনা করছি।’

উল্লেখ্য, জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাতে প্রায় ৯০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতেন। যারমধ্যে পাঁচ হাজার নারীর নামাজ আদায়ের জন্য পর্দা দিয়ে আলাদা ব্যবস্থা করা থাকতো।

সর্বশেষ

বিবিএসের খানা জরিপ: দেশে ৪২ শতাংশ মানুষ এখন দরিদ্র

নিউজ ডেস্ক: করোনার প্রভাবে দেশে সার্বিক দারিদ্র্যের হার (আপার পোভার্টি রেট) বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪২ শতাংশ। দেশব্যাপী খানা পর্যায়ের জরিপের ভিত্তিতে এই তথ্য...

কারাগারে নারীর সঙ্গে বন্দির সময় কাটানোর ঘটনায় জড়িতরা শাস্তি পাবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, কারাগারে নারীর সঙ্গে সাজাপ্রাপ্ত বন্দির সময় কাটানোর ঘটনায় জড়িতরা বিধি অনুযায়ী শাস্তি পাবে। শনিবার একটি...

লন্ডন ফেরতদের কোয়ারেন্টাইনের সময় ৭ দিন বাড়লো

নিউজ ডেস্ক: লন্ডনফেরত যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের সময় চারদিন থেকে বাড়িয়ে আবার ৭ দিন করা হয়েছে। মাত্র ৮ দিনের মাথায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলো...

কলকাতায় মোদি, মমতার সঙ্গে বিরল ছবি

নিউজ ডেস্ক: নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মদিবস উপলক্ষে কলকাতা পৌঁছেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী । শনিবার স্থানীয় বিকেলে তিনি কলকাতা পৌঁছেন।

অন্ন বস্ত্রের সমাধানের পর গৃহহীনদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা : তথ্যমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মানুষের তিনটি মৌলিক চাহিদা, অন্ন, বস্ত্র এবং বাসস্থান। বঙ্গবন্ধু...