36 C
Dhaka
Tuesday, January 26, 2021
No menu items!

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের ২ বছর: নিজ আয়ে চলা শুরু

নিউজ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের দুই বছরের মাথায় নিজস্ব আয়ে চলা শুরু করেছে বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিসিএসসিএল)।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর উৎক্ষেপণের দুই বছর উপলক্ষে আগামী পরিকল্পনা ও ব্যবসায়িক দিক নিয়ে কোম্পানির চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ এক আলোচনায় এই তথ্য জানান।

২০১৮ সালে ১২ মে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে প্রথম বাণিজ্যিক স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ এর সফল উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে ১৬ কোটি মানুষের বাংলাদেশ প্রবেশ করে মহাকাশ যুগে।

শাহজাহান মাহমুদ বলেন, “ইতিমধ্যে ৩৫টি বেসরকারি টিভি চ্যানেল বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সম্প্রচার করছে। আরও কয়েকটি টিভি চ্যানেল সম্প্রচার প্রক্রিয়ায়র মধ্যে রয়েছে। এছাড়া ডিটিএইচ (ডিরেক্ট টু হোম) সেবাও দেওয়া হচ্ছে।”

বেক্সিমকো কমিউনিকেশন্স গত বছর ১৬ মে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ডিটিএইচ (ডিরেক্ট টু হোম) প্রযুক্তির সেবা চালু করে, যার মাধ্যমে কেবল সংযোগ ছাড়াই স্যাটেলাইট চ্যানেল দেখা যাচ্ছে। আর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর বাণিজ্যিক যাত্রাও এর মধ্য দিয়েই শুরু হয়।

এরপর গত ১ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোর বাণিজ্যিক সম্প্রচারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

টিভি চ্যানেলগুলো সম্প্রচার বিল নিয়মিতভাবে দিলে কোম্পানির আয় বছরে ১২৫ কোটি টাকা হবে জানিয়ে শাহজাহান মাহমুদ বলেন, “বর্তমানে নিজস্ব আয়েই কোম্পানি চলছে।” বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এ মোট ৪০টি ট্রান্সপন্ডার রয়েছে। এর মধ্যে ২৬টি কেইউ-ব্যান্ড ও ১৪টি সি-ব্যান্ডের।

কেইউ-ব্যান্ডের ৮টি এবং সি-ব্যান্ডের ৭টি ট্রান্সপন্ডার ভাড়া হয়েছে জানিয়ে শাহজাহান মাহমুদ বলেন, আরও কয়েকটি ট্রান্সপন্ডার ভাড়ার প্রক্রিয়া চলছে। বাংলাদেশে সেনাবাহিনীও আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

কোম্পানির আয়ের পথ আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা জানিয়ে তিনি বলেন, “যেসব বিদেশি চ্যানেল বাংলাদেশে বিদেশি স্যাটেলাইট দিয়ে সম্প্রচার করছে, সেই সব চ্যানেল যাতে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহার করে, তার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।”

এ বছরের শুরুতেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর বাণিজ্যিক পরিসর বাড়াতে ব্যাংক খাতে সেবা সম্প্রসারণের পরিকল্পনা জানিয়েছিলেন শাহজাহান মাহমুদ। করোনাভাইরাস সঙ্কট কেটে গেলেই এ খাতে চুক্তি হবে এবং আয় আরও বাড়বে বলে আশাবাদী তিনি।

“ব্যাংকগুলো তাদের শাখা অফিস ও এটিএম বুথের কাজ পরিচালনায় ইন্টারনেট ব্যবহার করে। সেই কাজটিই হবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ইতোমধ্যে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ৪০টি দ্বীপে ইন্টারনেট ও টেলিমেডিসিন সেবা দেওয়া হচ্ছে বলেও জানান শাহজাহান মাহমুদ।