36 C
Dhaka
Friday, January 22, 2021
No menu items!

যুক্তরাষ্ট্রের ৫০ স্টেট: মজার সব তথ্য

আবু সাঈদ লীপু

অ্যালাবামা দিয়ে শুরু করা যাক। মেক্সিকো উপসাগরের তীরে অ্যালাবামার একটি শহর আছে মোবাইল নামে। কথা বলার জন্য মোবাইল ফোন তার অনেক পরে এসেছে। ম্যাগনোলিয়া স্প্রিং অ্যালাবামার ছোট্ট একটি শহর। এই শহরে আছে একশ বছরেরও প্রাচীন ডাক পরিবহনের ব্যবস্থা। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এখানে শুধুমাত্র নদীপথে নৌকায় করে ডাক সরবরাহ করা হয়।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে দীর্ঘ ডাক পরিবহন ব্যবস্থা ওকলাহোমা স্টেটের গ্রামীণ এলাকায়। মাত্র ২০০ বাড়িতে ডাক সরবরাহ করার জন্য পোস্টম্যানকে প্রতিদিন ৩০০ কিলোমিটার যাত্রা করতে হয়। ওকলাহোমায় আছে সবচেয়ে বেশী মানব-নির্মিত কৃত্রিম হ্রদ। বিচিত্র হচ্ছে, ওকলাহোমার জাতীয় সব্জির নাম তরমুজ। অথচ আমরা জানি তরমুজ একটি ফল!

যদিও ক্যানসাস নামে একটি শহর আছে ওকলাহোমায়, কিন্তু প্রকৃত ক্যানসাস স্টেট হচ্ছে এর উত্তরে। ক্যানসাস স্টেটে লেবানন নামের একটি শহর আছে। এই শহরের ঠিক ৩ কিলোমিটার উত্তরে যুক্তরাষ্ট্রের ভৌগলিক কেন্দ্রস্থল। অবশ্য আলাস্কা এবং হাওয়াই-কে বাদ দিতে হবে এই গণনায়। মজার ব্যাপার হচ্ছে, ক্যানসাস সিটির অবস্থান কিন্তু ক্যানসাস স্টেটে নয়।

ক্যানসাস সিটি অবস্থিত পাশের মিজৌরি স্টেটে। মিজৌরির রিচল্যান্ড শহরে আছে যুক্তরাষ্ট্রের একমাত্র গুহা রেস্টুরেন্ট। আমেরিকার মোট জনসংখ্যার গড় করলে তার কেন্দ্রস্থল এই মিজৌরি স্টেটে। মিজৌরি সর্বমোট আটটি ভিন্ন স্টেটের সাথে সীমান্ত দিয়ে সংযুক্ত।

মিজৌরির সাথে সংযুক্ত টেনেসি স্টেট। টেনেসিও আটটি ভিন্ন স্টেটের সাথে সীমান্ত দিয়ে সংযুক্ত। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের স্টেটগুলোর মধ্যে টেনেসিই একমাত্র স্টেট যা গৃহযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের হয়ে কনফেডারেসিতে যুক্ত হয়েছিলো। এরমধ্যে ব্যতিক্রম ছিলো টেনেসির স্কট কাউন্টি। স্কট কাউন্টি টেনেসি স্টেট থেকে বের হয়ে নিজেকেই স্টেট হিসেবে ঘোষণা করে দিয়েছিলো। যদিও অন্য কেউ তাকে স্বীকৃতি দেয়নি। অনেক অনেক পরে, এইমাত্র সেদিন, ১৯৮৬ সালে স্কট কাউন্টি আবার টেনেসি স্টেটে যোগ দেয়। টেনেসিতে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে লম্বা সময় ধরে চলা রেডিও প্রোগ্রাম আছে। দ্য গ্রান্ড ওলে অপ্রি নামের প্রোগ্রামটি ১৯২৫ সাল থেকে চলছে।

টেনেসির পশ্চিমে আঁকাবাঁকা মিসিসিপি নদী যা আরকানসাস স্টেটের সীমান্ত। মিসিসিপি নদীর গথিপথ পরিবর্তনের ফলে টেনেসি আর আরকানসাস সীমান্তে অনেকগুলো ছিটমহল আছে। মিসিসিপি নদীর একটি উপনদী হচ্ছে আরকানসাস নদী যা আরকানসাস স্টেটের মধ্যে দিয়ে গিয়েছে।

আরকানসাস নদীর উৎসস্থল হচ্ছে কলোরাডো স্টেট। কলোরাডো স্টেটের বিরাট একটি সমস্যা হচ্ছে কেউই পুরোপুরি নিশ্চিত না কোন পাহাড়টি স্টেটের সবচেয়ে উঁচু স্থান- মাউন্ট এলবার্ট না মাউন্ট ম্যাসিভ? এই দুই পাহাড়ের উচ্চতার পার্থক্য মাত্র দশ মিটার। কে বেশী উঁচু এই নিয়ে দুটি পক্ষ এবং বিবাদ আছে সেখানে। দু’পক্ষই প্রতিবছর পাথরের টুকরো পাহাড়ের চুড়ায় জমা করে যাতে নিজেদের পাহাড় বেশী উঁচু হয়। আমেরিকার বিমান বাহিনীর প্রশিক্ষণ একাডেমি এই স্টেটে। কলোরাডোর ডেনভার হচ্ছে একমাত্র শহর, যেটি অর্থাভাবে অলিম্পিক আয়োজন ফিরিয়ে দিয়েছিলো ১৯৭২ সালে। ডেনভার শহরে আছে আমেরিকার সবচেয়ে দীর্ঘ স্ট্রিট কোলফ্যাক্স অ্যাভিনিউ , যা ৪২ কিলোমিটার দীর্ঘ।

এদিকে, আমেরিকার সবচেয়ে ক্ষুদ্র সিট্রট আছে ওহাইও স্টেটের বেলফন্টেইন শহরে। এই রাস্তার নাম ম্যাককিনলি স্ট্রিট, মাত্র ৯ মিটার দীর্ঘ। ওহাইও স্টেটের সর্ব উত্তরের অবস্থান আদতে কানাডার সবচেয়ে দক্ষিণের পিলি দ্বীপের চেয়েও উত্তরে।

কানাডার পিলি দ্বীপের উত্তরে ক্যালিফোর্নিয়াসহ আমেরিকার ২৭টি স্টেটের কোন না কোন অংশ আছে। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটে প্রায় ৪ কোটি মানুষ আছে, যা কানাডার মোট জনসংখ্যার চেয়েও বেশী। ক্যালিফোর্নিয়ায় সবচেয়ে বেশী ম্যাকডোনাল্ডস স্টোর আছে, মোট ১২৯৫টি। ক্যালিফোর্নিয়ার ডেথ ভ্যালি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৮২ মিটার নীচে। লস অ্যাঞ্জেলস শহর পশ্চিম উপকূলে প্রশান্ত মহাসাগরের তীরের শহর হলেও এর পশ্চিমে আরও ছয়টি স্টেটের রাজধানী আছে – অলিম্পিয়া, সালেম, জুনিউ, হনুলুলু, স্যাক্রামেন্টা, কারসন সিটি।

কারসনি সিটি হচ্ছে নেভাদা স্টেটের রাজধানী। এন্টারটেইনমেন্ট শহর লাস ভেগাস নেভাদার হলেও এর অবস্থান একেবারে দক্ষিণে। আইনত নেভাদায় গোঁফওয়ালা পুরুষ মেয়েদের চুমু দিতে পারে না। নেভাদার উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের কাছে একটা জায়গা আছে যেখান থেকে সবচেয়ে কাছের ম্যাকডোনাল্ডসও ১৮৬ কিলোমিটার দূরে। আমেরিকার আর কোন জায়গা থেকে এত দূরে ম্যাকডোনাল্ডস নেই। তাই বলে নেভাদায় কিন্তু আমেরিকার সবচেয়ে কম সংখ্যক ম্যাকডোনাল্ডস নাই!

সবচেয়ে কম ম্যাকডোনাল্ডস আছে নর্থ ডাকোটা স্টেটে, মাত্র ২৯টি। কোন কোন আইনজ্ঞ মনে করেন ২০১২ সাল পর্যন্ত নর্থ ডাকোটা টেকনিক্যালি একটি স্টেট ছিলোনা। কারণ তাদের সংবিধানে স্টেট হতে গেলে ফেডারেল সরকারের যে সমস্ত নিয়মাবলী আছে তা পূরণ করার কথা লেখা ছিলো না। যুক্তরাষ্ট্রের অন্য কোন স্টেটের চেয়ে সবচেয়ে বেশী সূর্যমূখী ফুল হয় নর্থ ডাকোটায়। ম্যাকডোনাল্ডসের সংখ্যা কম থাকলেও নর্থ ডাকোটা আমেরিকার সবচেয়ে কম জনবহুল স্টেট না।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে কম জনবহুল স্টেট হচ্ছে ওয়াইওমিং। এরাই সর্ব প্রথম ১৮৬৯ সালে নারীদের ভোটাধিকার দেয়। পুরো ওয়াইওমিং স্টেটে মাত্র দুই সেট স্বয়ংক্রিয় স্কেলেটর সিঁড়ি আছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম ন্যাশনাল মনুমেন্ট ডেভিলস টাওয়ার এই স্টেটে। ওয়াইওমিং স্টেটে আছে বিখ্যাত ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্ক।

ইয়েলোস্টোন ন্যাশনাল পার্কের সামান্য অংশ পড়েছে পাশের আইডাহো স্টেটে। পার্কের এই জায়গায় মানুষ খুন করেও চলে যাওয় যায় নির্বিঘেœ। আইনের কী এক ফাঁক আছে যাতে বাইরের কেউ এসে খুন করলে তাকে গ্রেপ্তার করা যাবে না। আইডাহোতে একটা মাত্র রাস্তা দক্ষিণ থেকে উত্তরে চলে গিয়েছে। জনসংখ্যাও অনেক কম। ফলে এখানে আছে একটা মাত্র টেলিফোন এরিয়া কোড- ২০৮।

একটা মাত্র টেলিফোন এরিয়া কোড আছে পাশের স্টেট মন্টানাতেও- ৪০৬। একমাত্র মন্টানাতেই আছে ট্রিপল ডিভাইড পিক। যার ফলে এখান থেকে পানি প্রশান্ত মহাসাগর, আটলান্টিক মহাসাগর এবং হাডসন উপসাগর তিন জায়গায় যেতে পারে। যুক্তরাষ্টের সবচেয়ে কম ব্যস্ত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর মন্টানা ওসন কম্যুনিটি এয়ারপোর্ট। সারা বছরে মাত্র ৪ হাজার যাত্রী উঠানামা করে। অর্থাৎ গড়ে প্রতিদিন ১১ জন।

উল্টোদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ব্যস্ত এয়ারপোর্ট জর্জিয়া স্টেটের আটলান্টা শহরের হার্টসফিল্ড-জ্যাকসন এয়ারপোর্ট। বছরে প্রায় পাঁচ কোটি যাত্রী উঠানামা করে এখানে। অর্থাৎ দিনে প্রায় ১ লক্ষ ৩৫ হাজার। আটলান্টার পিচট্রি এলাকায় শুধুমাত্র গল্ফ-কার্ট চলার জন্য ১৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ রাস্তা আছে। এখানকার ৯ হাজার অধিবাসীদের সাধারণ গাড়ির সাথে গল্ফ-কার্টও থাকে। বাচ্চারা ১২ বছর হলেই গল্ফ-কার্ট চালিয়ে স্কুলে যায়। জর্জিয়ার স্প্রিঞ্জার পর্বত থেকে ৩,৫৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ অ্যাপালেশিয়ান হাইকিং ট্রেইল শুরু। যার শেষ হয়েছে কাটাডিন পর্বতে গিয়ে।

কাটাডিন পর্বত হচ্ছে আমেরিকার মেইন স্টেটে। মেইন যুক্তরাষ্ট্রের একমাত্র স্টেট যার সীমান্তে একটি মাত্র স্টেট আছে। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশী গলদা চিংড়ি এবং ব্লুবেরি এখানে হয়। বলা হয়ে থাকে ডোনাটের মাঝখানের ছিদ্র মেইন স্টেটে আবিস্কার হয়েছে। মেইন স্টেট থেকে আফ্রিকা যত দূরে মিয়ামি তার চেয়েও বেশী দূরে।

আফ্রিকা থেকে দ্বিতীয় নিকটবর্তী স্টেট হচ্ছে ম্যাসাচুসেটস। আরও নির্দিষ্ট করলে ম্যাসাচুসেটস এর কেইপ কড উপকূল। কেইপ কড মূল ভূখন্ড থেকে আলাদা একটি দ্বীপ। মজার ব্যাপার হচ্ছে এদের আলাদা করার জন্য যে খাল তা মানুষের তৈরী। ম্যাসাচুসেটস স্টেটের অধিবাসীরা ‘ব্রিজের ওপারে’ বলতে কেইপ কডকেই বুঝায়। জগতসেরা হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি এই স্টেটেই। ম্যাসাচুসেটস মায়ামি শহর থেকে যত দূরে পানামা সিটি থেকে মায়ামি তার চেয়ে কাছে।

ফ্লোরিডা স্টেটের মায়ামি সৈকত থেকে বাহামার রাজধানী নাসাউ এবং কিউবার রাজধানী হ্যাভানা যত দূরে তার চেয়েও বেশী দূরে নিজ স্টেটের রাজধানী টালাহাসি। ফ্লোরিডার বিচিত্র আইনে মহিলারা একদিনে তিনটির বেশী থালা ভাঙতে পারবে না। সমূদ্রপৃষ্ঠ থেকে ফ্লোরিডার ব্রিটন হিল পাহাড়ের উচ্চতা মাত্র ১০৩ মিটার। এটাই ফ্লোরিডার সর্বোচ্চ স্থান। মজার ব্যাপার হচ্ছে, আমেরিকার সব স্টেটের সর্বোচ্চ স্থানের বিবেচনায় এটাই হচ্ছে সর্বনিম্ন উচ্চতা।

ব্রিটন হিলের উচ্চতার চেয়ে সাউথ ডাকোটার সর্বোচ্চ স্থান ব্লাক ইলক পিক ২৩ গুন বেশী উঁচু। আলাস্কা এবং হাওয়াইকে গণনায় নিলে যুক্তরাষ্ট্রের সবগুলো স্টেটের ভৌগলিক কেন্দ্রস্থল হচ্ছে এই সাউথ ডাকোটার পশ্চিমাংশে। গ্রানাইট পাথরে লিংকনসহ যুক্তরাষ্ট্রের ৪ প্রেসিডেন্টের বিশাল মূর্তি বানানো হয়েছে মাউন্ট রাশমোরে যা এই স্টেটেই।

সাউথ ডাকোটার ৯ দিন পরে ঘোষিত স্টেট হচ্ছে পাশের ওয়াশিংটন স্টেট। এর পূর্বের নাম ছিলো কলাম্বিয়া স্টেট। কিন্তু ডিস্ট্রিক্ট অব কলাম্বিয়া নামের সাথে সাংঘর্ষিক হওয়ায় এর নাম রাখা হয় ওয়াশিংটন। কিন্তু এতেও শেষ রক্ষা হয় না। কারণ ডিস্ট্রিক্ট অব কলাম্বিয়া সেই ওয়াশিংটন নামেই প্রচলিত হয়ে যায়। ক্যালিফোর্নিয়ার সিলিকন ভ্যালি উত্তরে ওয়াশিংটন স্টেটের সিয়াটলে চলে যেতে পারে অদূর ভবিষ্যতে। মাইক্রোসফট এবং অ্যামাজনের মত জায়ান্ট সেই সংবাদই দিচ্ছে।

হাওয়াই স্টেটেও ওয়াশিংটন প্লেস আছে। তবে সেটি হচ্ছে স্টেট গভর্নরের বাসস্থান। মজার ব্যাপার হচ্ছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় একমাত্র হাওয়াইকে নিজস্ব মুদ্রা ছাপানোর অনুমতি দেয়া হয়েছিলো। কারণ যুদ্ধের সময় যদি জাপান হাওয়াই দখল করে নিত তবে ফেডারেল গভর্নমেন্ট সেই মুদ্রা বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করতো। হাওয়াই মূল আমেরিকার বাইরে প্রশান্ত মহাসাগরের দ্বীপ স্টেট।

হাওয়াই থেকে সবচেয়ে কাছের স্টেট হচ্ছে আলাস্কা। যার সীমান্ত দু’টি ভিন্ন দেশের সাথে- কানাডা ও রাশিয়া। আলাস্কার রাজধানী জুনিউ এর সাথে আলাস্কার, এমনকি উত্তর আমেরিকা মহাদেশের বাকি অংশের কোনো সড়ক যোগাযোগ নেই। গাড়ি চালিয়ে জুনিউতে যাবার কোন সুযোগ নেই। আলাস্কার উপকূল যুক্তরাষ্ট্রের সকল স্টেটের মধ্যে দীর্ঘতম। যুক্তরাষ্ট্রের চারটি স্টেটের মধ্যে আলাস্কা হচ্ছে একটি, যেখানে কোন বিলবোর্ড স্থাপন করা যায় না। বাকি তিনটি স্টেট হচ্ছে হাইয়াই, মেইন এবং ভারমন্ট।

ভারমন্ট স্টেটের মন্টপিলার হচ্ছে একমাত্র স্টেট রাজধানী যেখানে কোন ম্যাকডোনাল্ডস নেই। জনসংখ্যার অনুপাতে ভারমন্টেই সবচেয়ে বেশী গরু আছে। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশী ম্যাপল সিরাপও এখানেই হয়। ভারমন্ট স্টেটের সবচেয়ে উঁচু বিল্ডিং মাত্র ১১ তলা। যুক্তরাষ্টের বাকী ৪৯টি স্টেটেই এর চেয়ে উঁচু বিল্ডিং আছে।

আমেরিকার সবচেয়ে উঁচু ভবন হচ্ছে নিউ ইয়র্ক স্টেটের ফ্রিডম টাওয়ার। নিউ ইয়র্ক যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম ধনী স্টেট। নিউ ইয়র্ক সিটিকে বর্তমান পৃথিবীর রাজধানী বলে ধরা হয়। অতীতে লন্ডন সেই অবস্থানে ছিলো। নিউ ইয়র্ক স্টেটের দ্বীপ এলিস এবং লিবার্টি যেখানে বিখ্যাত স্ট্যাচু অব লিবার্টি আছে, তা সম্পূর্ণ নিউ জার্সি স্টেটের সীমানার ভিতরে। নিউ ইয়র্ক থেকে বের হয়ে নিউ জার্সি হয়ে এসব দ্বীপে যেতে হয়।

নিউ জার্সি স্টেটের ওয়েস্ট মিলফোর্ড এলাকার ক্লিন্টন রোড হচ্ছে আমেরিকার সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের ট্রাফিক লাইট। এখানে পুরো ৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হয় রেড লাইটে। বিজ্ঞানী টমাস আলভা এডিসন এই স্টেটেই সর্ব প্রথম বৈদ্যুতিক বাল্ব নির্মাণ করেন। নিউ জার্সি স্টেটের সর্ব দক্ষিণের স্থান কেন্টাকি স্টেটের সর্ব উত্তরের স্থানের চেয়েও দক্ষিণে।

কেন্টাকি স্টেটের পশ্চিম প্রান্তের মিসৌরি নদীর অপর পাড়ে কেন্টাকি বেন্ড আছে যা মূল কেন্টাকির সাথে যুক্ত নয়। বিখ্যাত ফ্রাইড চিকেন চেইন কেন্টাকি ফ্রাইড চিকেন সংক্ষেপে কেএফসি এই স্টেটেই। এখানকার মিডলসবোরো যুক্তরাষ্ট্রের একমাত্র শহর যার অবস্থান উল্কা পতন সৃষ্ট গর্তে। কেন্টাকি হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট অ্যাব্রাহাম লিংকনের জন্মস্থান।

অ্যাব্রাহম লিংকন ইলিনয় স্টেটের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ নির্বাচিত হয়েছিলেন। এই ইলিনয় স্টেটেই আছে অরিজিনাল বার্গার কিং রেস্টুরেন্ট। অবশ্য এই রেস্টুরেন্ট বিখ্যাত বার্গার কিং চেইন নয়। বার্গার কিং চেইন শুরু হবার পূর্বেই এই রেস্টুরেন্ট ছিলো। ফলে পূর্বের বার্গার কিং নতুন বার্গার কিং এর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে দেয়। মামলার রায় হয় পুরোনো বার্গার কিংয়ের ৩২ কিলোমিটারের মধ্যে কোন বার্গার কিং চেইনের স্টোর বানানো যাবে না। ইলিনয়ের শিকাগো হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় বৃহত্তম শহর। শিকাগোর কাছে ডে প্লেইনস শহরে ১৯৫৫ সালে সর্ব প্রথম ম্যাকডোনাল্ডস চালু হয়। যুক্তরাষ্ট্রের একদা সর্বোচ্চ ভবন সিয়ার্স টাওয়ার শিকাগোতে যার নকশা করেছেন বাংলাদেশী এফ আর খান।

শিকাগো টেক্সাস স্টেটের হিউস্টনের চেয়ে সামান্য বড় শহর। হিউস্টন যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ বৃহত্তম শহর। আলাস্কার পর টেক্সাস যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্টেট। টেক্সাস আকারে ইউরোপের যে কোন দেশের চেয়েও বড়। টেক্সাস এতো বড় যে, এল প্যাসো শহর ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলস শহর থেকে যত দূরে নিজ স্টেটের শহর হিউস্টন তার চেয়েও বেশী দূরে। অস্টিনের এসএইচ-১৩০ হাইওয়েতে বৈধভাবে ঘন্টায় ১৩৭ কিলোমিটার বেগে গাড়ি চালানো যায়। যুক্তরাষ্ট্রে এটাই সর্বোচ্চ গতি। টেক্সাসের সর্ব উত্তরের স্থান থেকে সর্ব দক্ষিণের স্থান যত দূরে মিশিগান স্টেট তার থেকে কাছে।

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরে কানাডা। কিন্তু মিশিগান স্টেটের ডেট্রয়েট শহর থেকে দক্ষিণে চললে এক সময় কানাডার মধ্যে ঢুকে যেতে হবে। ওহাইও স্টেটের সাধে দ্বন্দ্বে টলেডো স্ট্রিপের সৃষ্টি যা আমেরিকার একমাত্র স্টেট মিশিগানকে সস্পূর্ণ দুই অংশে বিভক্ত করেছে। মিশিগান স্টেটের হাইওয়ে এম-১৮৫ যুক্তরাষ্ট্রের একমাত্র হাইওয়ে যেখানে মোটর গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ। শুধু সাইকেল চালানো যাবে।

মিশিগানের উত্তর প্রান্তের সাথে সংযুক্ত একমাত্র স্টেট উইসকনসিন। এখানকার আমেরিকান ফুটবল দল গ্রিন বে প্যাকারস খুবই জনপ্রিয়। এতটাই জনপ্রিয় যে একটি সিজন টিকেট কিনতে হলে ৩০ বছর অপেক্ষা করতে হয়। ফলে বাবা-মা শিশু জন্মের সাথে সাথেই তাদের নামে টিকেট কেনার জন্য দরখাস্ত দিয়ে রাখে। উইসকনসিনের ওয়াটারটনে ইউটাহ স্ট্রিট আছে।

কিন্তু মূল ইউটাহ স্টেট আমেরিকার মধ্য-পশ্চিমে। ইউটাহ স্টেটের মধু যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে সুস্বাদু মধু। এখানেই আছে বিশাল ইন্টারস্টেট হাইওয়ে আই-৭০ এর অংশ। যুক্তরাষ্ট্রের কোন হাইওয়ের দীর্ঘতম অংশ এখানে যার ১৭০ কিলোমিটারের মধ্যে কোন গ্যাস স্টেশন নেই।

আই-৭০ শেষ হয়েছে আরও ৩৩০০ কিলোমিটার উত্তরে ম্যারিল্যান্ড স্টেটের বাল্টিমোর শহরে। ম্যারিল্যান্ড স্টেটে কোন প্রাকৃতিক হ্রদ নেই। ম্যারিল্যান্ড স্টেটের গঠন প্যানহ্যান্ডলের মত। পশ্চিম দিকে হ্যান্ডেলের কোন কোন স্থান খুবই সরু, মাত্র ৩ কিলোমিটারের চেয়েও সরু স্থান আছে। এরপর অবশ্য আরও পশ্চিমে গিয়ে ৩০ কিলোমিটার প্রশস্ত হয়েছে ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া স্টেটের উত্তরে।

ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া অবশ্যই একটি দক্ষিণের স্টেট। কিন্তু এরও একটি প্যানহ্যান্ডেল আছে, যা এতটাই উত্তরে গিয়েছে যে নিউ ইয়র্ক বা নেব্রাস্কার সমতলে পৌঁছেছে।

নেব্রাস্কা স্টেটের মোনোউয়ি হচ্ছে একটি নিবন্ধিত পৌরসভা। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এই পৌরসভার জনসংখ্যা মাত্র ১ জন- এলসি এইলার। তিনিই এই শহরের মেয়র, লাইব্রেরিয়ান। তার একমাত্র বারের লাইসেন্স তিনি নিজেই দেন। অ্যারিজোনা স্টেটের টরটিলা ফ্লাটও মোনোউয়ির চেয়ে বড়। কারণ সেখানে ৬ জন অধিবাসী আছে।

অ্যারিজোনা স্টেটে আছে চার স্টেট মিলনের চার ভাগের একভাগ। আমেরিকার এই একমাত্র জায়গায় চার স্টেট একসাথে মিলেছে। বাকী তিনটি হচ্ছে ইউটাহ, কলোরাডো এবং নিউ মেক্সিকো। বিখ্যাত গ্রান্ড ক্যানিয়ন এবং হুবার ড্যাম অ্যারিজোনাতেই।

নিউ ম্যাক্সিকো হচ্ছে একমাত্র স্টেট যেখানে আইনগতভাবে বলা হয়েছে প্লুটো একটি গ্রহ। নিউ মেক্সিকোর রাজধানী সান্টা ফে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ রাজধানী, যা ২১৯৫ মিটার উঁচুতে। আমেরিকার দলীয় প্রেসিডেন্সিয়াল প্রার্থী নির্বাচনের সর্বশেষ ভোটগ্রহণ হয় নিউ মেক্সিকোতে। সাধারনতঃ এই প্রার্থী নির্বাচন শুরু হয় আইওয়া স্টেট থেকে।

আইওয়া হচ্ছে একমাত্র স্টেট যার পূর্ব ও পশ্চিম সীমান্ত পানি দ্বারা পরিবেষ্টিত। আইওয়ার পশ্চিমে মিসৌরি নদী আর পূর্বে মিসিসিপি নদী। আইওয়া সিটি নামে একটা শহর আছে এখানে অথচ স্টেটের রাজধানী হচ্ছে ডে মোইন্স।

মিসিসিপি নদীর নামে যুক্তরাষ্ট্রের একটা স্টেটও আছে। পপ লিজেন্ড এলভিস প্রিসলির জন্ম মিসিসিপি স্টেটে। ২০১২ সালের সাইক্লোনের সময় মিসিসিপি নদী পুরো ২৪ ঘন্টা উল্টো দিকে প্রবাহিত হয়েছিলো। কারণ প্রচন্ড ঢেউয়ের ফলে সাগরের উচ্চতা বেড়ে গিয়েছিলো। মিসিসিপি নদী কিন্তু মিসিসিপি স্টেট দিয়ে সাগরে পড়েনি।

মিসিসিপি নদীর মোহনা হচ্ছে পাশের লুইজিয়ানা স্টেটে। এখানকার নিউ অরলিন্সের মার্ডি গ্রা উৎসব খুবই বিখ্যাত। লুইজিয়ানায় আছে জলের উপরে আমেরিকার সবচেয়ে দীর্ঘ সেতু – ৩৮ কিলোমিটার লম্বা। সেতুটা এত বড় যে এক-তৃতীয়াংশ গেলেই দু’পাশের কোন ভূমি দেখা যায় না।

আরেকটি দীর্ঘ সেতু আছে নর্থ ক্যারোলিনাতে। নাম ভার্জিনিয়া ডেয়ার মেমোরিয়াল ব্রিজ, যা প্রায় ৯ কিলোমিটার লম্বা সেতু। এই ব্রিজ দিয়েই কিটি হক যাওয়া যায়, যেখানে রাইট ভ্রাতৃদ্বয় প্রথম সফলভাবে বিমান উড়িয়েছিলেন। মাত্র ১২ সেকেন্ডে তা ৪০ মিটারের মত আকাশে উড়েছিলো। এই দূরত্ব এখনকার বোয়িং ৭৪৭ এর পাখার চাইতেও কম।

নর্থ ক্যারোলিনার দক্ষিণের স্টেট হলো সাউথ ক্যারোলিনা। তাই বলে সাউথ ক্যারোলিনার পুরোটাই কিন্তু নর্থ ক্যারোলিনার দক্ষিণে নয়। সাউথ ক্যারোলিনার অর্ধেকের মত অংশ নর্থ ক্যারোলিনার দক্ষিণ স্থানের চেয়ে উত্তরে। মজার ব্যাপার হচ্ছে সাউথ ক্যারোলিনার একটি শহরের নাম নর্থ। তার মানে একে বলা হয় নর্থ, সাউথ ক্যারোলিনা। এই সাউথ ক্যারোলিনাতেই সর্ব প্রথম আমেরিকার গৃহযুদ্ধ শুরু হয়।

মোট ৫০০ গৃহযুদ্ধের একটি হয় ইন্ডিয়ানা স্টেটে। ইন্ডিয়ানা স্টেটের ইন্ডিয়ানাপোলিসে আছে গাড়ির রেস ইনডি-৫০০। প্রায় ৮০০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই গোলাকার রেস এলাকা। যার মধ্যে পুরো ভ্যাটিকান নামক দেশটি অনায়াসে বসিয়ে দেয়া যাবে। এখানে একসাথে ৪ লক্ষ দর্শক গাড়ির রেস দেখতে পারে। দুনিয়ার আর কোন স্পোর্টস এরিনায় এতো দর্শক একসাথে বসার জায়গা নেই। ইন্ডিয়ানার জাতীয় পানীয় হচ্ছে পানি।

কিন্তু ওরেগন স্টেটের জাতীয় পানীয় হচ্ছে দুধ। ওরেগনের পোর্টল্যান্ড শহরে আছে দুনিয়ার সবচেয়ে ক্ষুদ্র পার্ক যা গিনেস বুকে রেকর্ড করা আছে। মিল এন্ড পার্ক নামের এই পার্কে একটি মাত্র গাছ আছে। ওরেগনে যুক্তরাষ্ট্রের অন্য যে কোন স্টেটের চেয়ে বেশী ভুতের শহর আছে। ওরেগন আমেরিকার অল্প কিছু স্টেটের একটি যেখানে কোন বিক্রয় কর নেই।

ওরেগনের মত নিউ হ্যাম্পশায়ার স্টেটেও কোন বিক্রয় কর নেই। এখানে প্রাপ্ত বয়স্কদের গাড়িতে বসে সিট বেল্ট বাঁধার কোন আইনগত বাধ্যবাধকতা নেই। নিউ হ্যাম্পশায়ারের উত্তরে আছে কানেকটিকাট লেক যেখান থেকে কানেকটিকান নদী বের হয়েছে।

কানেকটিকাট নদী কানেকটিকাট স্টেটের মধ্যে দিয়ে চলে আটলান্টিক মহাসাগরে পড়েছে। কানেকটিকাট স্টেটের হার্টফোর্ড এয়ারপোর্ট দিয়ে বছরে ৩০ লক্ষ যাত্রী চলাচল করে। এটাই আমেরিকার সবচেয়ে ছোট এয়ারপোর্ট যেখান থেকে ইউরোপে সরাসরি বিমান আছে।

অন্যদিকে ডেলাওয়ার হচ্ছে একমাত্র স্টেট যেখানে কোন এয়ারপোর্ট নেই। ফলে সরাসরি ইউরোপে যাবার প্রশ্নই উঠে না। কারণ এর আকার খুবই ছোট, নির্দিষ্ট করলে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম। তাই বিমানে করে কোনভাবেই এই স্টেটে যাওয়া যাবে না।

অন্যদিকে সবচেয়ে ক্ষুদ্র স্টেট হলো রোড আইল্যান্ড। এটা এত ছোট যে ভাটার সময় পুরো স্টেটের ৩ শতাংশ পানির উপরে জেগে উঠে। রোড আইল্যান্ডের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর ওয়ারউইক নামে একটি শহর আছে পেনসিলভ্যানিয়া স্টেটে।

পেনসিলভ্যানিয়া স্টেটের সেন্ট্রালিয়া নামক এলাকার কয়লার খনিতে ১৯৬২ সাল থেকে আগুন লেগে আছে। ধারণা করা হচ্ছে আরও ২০০ বছরেও বেশী আগুন থাকবে সেখানে। পেনসিলভ্যানিয়ার হারশেকে বলা হয় চকোলেট রাজধানী। পিটসবার্গে সর্ব প্রথম বেইজবল স্টেডিয়াম বানানো হয় ১৯০৯ সালে। পেনসিলভ্যানিয়া স্টেটের সাথে মিনেসোটা স্টেটের সীমান্ত নেই। তবে ওয়াশিংটন ডিসিতে পেনসিলভ্যানিয়া অ্যাভিনিউ এবং মিনেসোটা অ্যাভিনিউ সংযুক্ত হয়েছে।

মিনেসোটা স্টেটের সর্ব উত্তরের স্থান আলাস্কা বাদে বাকী সব স্টেটের মধ্যে সর্ব উত্তরের জায়গা। জায়গাটা মাপের ভুলে কানাডার মধ্যে ঢুকে গিয়েছে। আমেরিকা আর কানাডার সীমান্তের অধিকাংশ জায়গা ৪৯ অক্ষাংশ দিয়ে বিভক্ত। কিন্তু মিনেসোটার উত্তরের উত্তর-পূর্ব কোণ ৪৯ অক্ষাংশের উত্তরে। এখানকার শ’ দু’য়েক অধিবাসীকে তাই প্রথমে কানাডার মধ্যে ঢুকে আবার আমেরিকায় আসতে হয় স্কুলে যেতে। মিনেসোটার উত্তরাঞ্চলে ভার্জিনিয়া নামে ছোট্ট একটি শহর আছে। কিন্তু প্রকৃত ভার্জিনিয়া কিন্তু বেশ বড় একটি স্টেট।

ভার্জিনিয়া স্টেটের ইউয়িং নামক শহর থেকে অন্য আটটি স্টেটের রাজধানী যত দুরে তার নিজের স্টেটের রাজধানী রিচমন্ড তার চেয়েও দূরে। ভার্জিনিয়া স্টেটের আলেক্সান্দ্রিয়া থেকে ইউয়িং শহরের দূরত্বের চেয়ে কানাডার টরন্টোর দূরত্ব কম। মজার ব্যাপার হচ্ছে ভার্জিনিয়ার পশ্চিম প্রান্ত ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া স্টেটের থেকেও পশ্চিমে। ভার্জিনিয়াতে আমেরিকার আটজন প্রেসিডেন্টের জন্ম হয়েছে, যা অন্যান্য স্টেটের চেয়ে সবচেয়ে বেশি।
লেখক: কানাডার জিওটেকনিক্যাল বিভাগের কর্মকর্তা।

সর্বশেষ

উদ্বোধনের অপেক্ষায় বাগেরহাটে ভূমিহীনদের জন্য নির্মিত ৪৩৩ ঘর

বাগেরহাট প্রতিনিধি : মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে বাগেরহাটে ভূমিহীনদের জন্য নির্মিত ৪৩৩টি ঘর উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনের...

৭ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবকের বিরুদ্ধে মামলা

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটে সাত বছর বয়সি এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এনাম শেখ (২২) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি)...

শরণখোলা ছাত্রলীগে বিভক্তি সংবাদ সম্মেলনে কমিটি থেকে বাদ পড়া নেতারা

বাগেরহাট প্রতিনিধি: তিন বছর পর হঠাৎ করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণায় দুই ভাগে বিভক্ত হয়েছে শরণখোলা উপজেলা ছাত্রলীগ। জেলা কমিটি থেকে এক সংবাদ...

বাগেরহাটে সরকারী রাস্তার গাঁছ বিক্রি করছে একটি চক্র

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের কচুয়ায় সরকারী রাস্তার পাশের গাঁছ কেটে বিক্রি করছে গাছ খোকো একটি চক্র। কিছু অসাধূ ব্যাক্তির সাথে গোপনে আতাঁত করে...

বাগেরহাটে মাছের খামারে ঘুরে দাড়িয়েছে বনানীর সংসার

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের চিতলমারীতে ‘আমার বাড়ি, আমার খামার’ প্রকল্পে’র ক্ষুদ্র ঋণ দারিদ্র্য বিমোচনে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। এ উপজেলার বেকার যুবক-যুবতী, গৃহিণী ও...