36 C
Dhaka
Thursday, January 21, 2021
No menu items!

আমার মুসলিম মা

রাজকুমার সিংহ

১৯৮৯ খ্রিষ্টাব্দ। বেসরকারি হাইস্কুলে চাকরি করতে গেলাম কুলাউড়ার প্রত্যন্ত এলাকায়। মুসলিম প্রধান এলাকা। লজিং থাকার মত সক্ষম হিন্দু পরিবার অপ্রতুল। স্কুল কর্তৃপক্ষ আমার থাকার ব্যবস্থা করে দিলেন ইউপি অফিসের একটি অব্যবহৃত কক্ষে। কাছেই এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবার। সে বাড়িতে খাওয়া এবং ভদ্রলোকের ছেলেমেয়েকে পড়ানো। এভাবেই শুরু হলো আমার কর্মজীবন।

লজিং এ থাকতে হলে নিজেকেই বিছানাবালিশের ব্যবস্থা করতে হয়। কিন্তু আমার ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম।লজিংমাস্টার সুদৃশ্য খাট পালংসহ বিছানাবালিশের ব্যবস্থা করে দিলেন।

মুসলমান বাড়িতে এর আগে কোনদিন খাইনি। তাই একটু অস্বস্ত্বিতে ভুগছিলাম কিন্তু প্রথমবার খেতে গিয়েই বুঝলাম-না অসুবিধা হবে না। সুন্দর ঝকঝকে থালাবাটি , রুচিসম্মত বাহারি রকমের তরকারি, ধোঁয়া উড়া চিকন চালের গরম ভাত দেখে আমার রুচি যেন বেড়ে গেল। গৃহকর্ত্রী খালাম্মা নিজে এসে যত্ন করে এমনভাবে খাওয়াতে শুরু করলেন যে প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাওয়া হয়ে গেল।

একদিকে গণিতের শিক্ষক হিসাবে সম্মান, অন্যদিকে সম্ভ্রান্ত পরিবারটির একজন হিসাবে এলাকার লোকজনের সমীহ আমাকে অন্যরকম এক উচ্চতায় নিয়ে গেল। মাঝে মাঝে গুনগুন করে গান গাই ‘এ মণিহার আমায় নাহি সাজে।………….’

স্বপ্নিল দিন কাটছে। সুন্দর সুশ্রী বাচ্চাগুলোর অমায়িক ব্যবহার, আমার প্রতি ভালবাসা এবং খালাম্মার আদরযত্ন আমাকে ভুলিয়ে দিলো যে আমি অন্যের বাড়িতে থাকছি, খাচ্ছি। থাকছি বলছি কারণ মাঝে মাঝে থেকেও যেতাম।

দিন অতিবাহিত হচ্ছে। একদিন সকালে ইউপি অফিস সংলগ্ন পুকুরে স্নান করতে গেছি। হঠাৎ লক্ষ্য করি, শরীরের বিভিন্ন জায়গায় লাল লাল গুটি বের হয়েছে।ঐগুলো আবার পেকে গিয়ে অগ্রভাগ সাদা সাদা হয়ে রয়েছে। মনের আনন্দে ঐগুলো ফাটাতে লাগলাম।ফাটছে আর পুঁজ ছিটকে এসে মুখমন্ডলে পড়ছে।এতে ছেলেমানুষি বিমলানন্দ লাভ করছি।

পরের দিন যখন ঘুম ভাঙলো , বিছানা ছাড়তে গিয়ে দেখি গা নাড়াতে পারছি না। সারা গা মুখমন্ডল লাল লাল ফুল ফোটে অপরুপ আকার ধারণ করেছে।আমি বেকুব তখনো বুঝতে পারছি না যে আমি চিকেন পক্স আক্রান্ত হয়েছি। স্কুলে যাওয়া হলো না।খেতে যেতে পারলাম না।

খবর ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগলো না। অনেকেই দেখতে এলো। খালাম্মা পাগলের মত হন্তদন্ত হয়ে ছুটে এলেন। আমার অবস্থা দেখে ‘ইন্নালিল্লাহি’ বলে দ্রুতবেগে আমার কাছে এলেন। আমার পক্স আক্রান্ত কপালে হাত রাখলেন। অনেকেই নিষেধ করলো আমাকে স্পর্শ না করতে। তিনি তা শোনেননি।দীর্ঘসময় আমার কপালে হাত রেখে বিলাপ করতে থাকলেন। আমি কেন আগে তাঁকে জানালাম না সেজন্য আমাকে ভর্ৎসনা করলেন।

আমার নিজ মা আমাকে অনেক স্নেহ করেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। তবে ঐ অবস্থায় আমাকে স্পর্শ করতেন কিনা তা নিয়ে আমি এখনো মাঝে মাঝে ভাবি।

দিন বদলেছে। মানুষের জাতিবিদ্বেষ না কমে বরং যেন বৃদ্ধি পাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার অন্তর্গত নিমড়া গ্রামের এক কবি আব্দুর রহমান (১৯০৮-১৯৯২) দু’লাইনের একটি কবিতা লিখেছিলেন।
‘তুমি হিন্দু, আমি মুসলিম
শুধু এ জন্ম দোষে,
আমি পড়িয়াছি হিন্দুর কোপে
তুমি মুসলিম রোষে।’

আমার কিন্তু খালাম্মার জন্য এখনো মন কাঁদে। আপনি ভালো আছেন তো খালাম্মা?

সর্বশেষ

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

নিউজ ডেস্ক: মিরপুরে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে জয় লাভ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিসিবির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাইসউদ্দিনের ইন্তেকাল, বিসিবির শোক

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সিনিয়র সহ-সভাপতি রাইসউদ্দিন আহমেদ আর নেই (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।...

ফেব্রুয়ারির মধ্যেই ক্রিকেটারদের জন্য ভ্যাকসিন আনা হবে: পাপন

স্পোর্টস ডেস্ক: বৃহস্পতিবার (২১জানুয়ারি) ভারত সরকারের কাছ থেকে উপহার হিসেবে ২০ লাখ করোনার ভ্যাকসিন বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে। অন্যদিকে বাংলাদেশ সরকার যে ভ্যাকসিন...

হোয়াইট হাউস ত্যাগ করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক: প্রেসিডেন্ট হিসেবে শেষবারের মতো হোয়াইট হাউস ত্যাগ করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আজ বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ১১টা ৫৯ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডে...

জিতলেও ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তা থেকেই গেল

স্পোর্টস ডেস্ক: টিভি পর্দায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড় দেখে অনেকে চিনতে পারেননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে রঙ্গ-রসিকতাও হয়েছে।