36 C
Dhaka
Sunday, January 24, 2021
No menu items!

ভাষানীড়ে থাকতে পারবেন করোনাযোদ্ধারা, ডিসিকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাব

নিউজ ডেস্ক: ভাষা সৈনিক গাজীউল হকের বগুড়ার ‘ভাষানীড়’ বাসাটি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবিলায় নিয়োজিত সম্মুখযোদ্ধা স্বাস্থ্যকর্মীদের আবাসনের জন্য ব্যবহারে ছেড়ে দিতে চান পরিবারের সদস্যরা। বগুড়ার জেলা প্রশাসককে (ডিসি) আনুষ্ঠানিকভাবে এ প্রস্তাব দিয়েছেন ভাষা সৈনিক গাজীউল হকের ছেলে রাহুল গাজী। বলেছেন, চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের থাকার জন্য ব্যবহারের প্রয়োজন হলে তারা বাড়িটি ছেড়ে দেবেন।

রাহুল গাজীর সঙ্গে বৃহস্পতিবার (৭ মে) কথা হয় । তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে চাই, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় স্বাস্থ্যযোদ্ধা যারা আছেন, তাদের আবাসিক ভবন হিসেবে ব্যবহারের প্রয়োজন হলে আমরা বাসাটি ছেড়ে দিতে রাজি আছি। বিষয়টি নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে বগুড়া জেলা প্রশাসকের সঙ্গে কথা বলেছি। লিখিতভাবে প্রস্তাবও দিয়েছি।’

রাহুল গাজী বলেন, আমার বাবা ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সম্পৃক্ত ছিলেন। তার অবদানের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে দেশের এই সংকট মুহূর্তে আমাদেরও কিছু করা উচিত। তাই আমরা পারিবারিকভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা তো ঢাকায় থাকি। তাই ডিসির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছি। পরে মেইল করেছি। তিনি আমাদের জানিয়েছেন, বিষয়টি তার বিবেচনায় থাকবে। প্রয়োজন হলে তিনি আমাদের অবহিত করবেন। ওই সময় ডিসির কাছে চারি পাঠিয়ে দিলেই হবে।

‘ভাষানীড়’ সম্পর্কে জানতে চাইলে ভাষা সৈনিক গাজীউল হকের সন্তান বলেন, গোয়ালগাড়ির নামাজঘর এলাকায় ভাষা সৈনিক গাজীউল হক সড়কে বাসাটির অবস্থান।প্রায় পৌনে দুই বিঘা জমির ওপর বাসাটির অবস্থান। চারদিক বাউন্ডারি দিয়ে ঘেরা। বাসা পাশে একটি ফাঁকা মাঠ রয়েছে। বাসার দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় ২৪টি রুম, দুইটি বড় রান্না ঘর ও আটটি টয়লেট আছে। প্রতিটি রুমে সামাজিক দূরত্ব মেনেও অনায়াসে তিন থেকে চার জনের থাকার ব্যবস্থা করা যাবে।

রাহুল গাজী বলেন, বাসাটিতে ভাষা সৈনিক গাজীউল হক বিদ্যাপীঠ নামে একটি স্কুল রয়েছে। প্লে-গ্রুপ থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাদান কার্যক্রম পরিচালিত হয় স্কুলটিতে। কিন্তু বর্তমানে করোনাভাইরাস সংকটের কারণে তো সারাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে। ফলেও স্কুলটিও বন্ধ। সে কারণেই আমরা স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিতদের আবাসন হিসেবে বাসাটি ব্যবহারের প্রস্তাব দিয়েছি।

রাহুল গাজী বলেন, এই দুর্যোগে যদি বাসাটি স্বাস্থ্যকর্মীদের আবাসনে কাজে লাগে, আমরা খুব খুশি হব।

ভাষা সৈনিক গাজীউল হক ১৯২৯ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নোয়াখালীর ছাগলনাইয়ায় জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনের নেতৃত্বে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের অন্যতম নেতা ছিলেন তিনি। স্বাধীন বাংলাদেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক-সাংস্কৃতিক আন্দোলনেও তিনি সক্রিয় ছিলেন।

পেশাগত জীবনে গাজীউল হক ছিলে সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যও ছিলেন তিনি। ছিলেন গাজীউল হক প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশের (পিআইবি) চেয়ারম্যান।

২০০৯ সালের ১৭ জুন ৮০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে গাজীউল হক। তার পাঁচ সন্তানের মধ্যে দুই মেয়ে নুতনা হক ও সুমানিকা হক এখন প্রবাসী। মেজ মেয়ে সুজাতা হক বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) কর্মকর্তা। ছোট মেয়ে সুতনুকা হক বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তা। কনিষ্ঠ সন্তান রাহুল গাজী একজন মাইনিং প্রকৌশলী। পাঁচ ভাই-বোন বাবার নামে ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করে স্থানীয় শিক্ষা ও সংস্কৃতি ক্ষেত্রে কাজ করে যাচ্ছেন।

সর্বশেষ

মেহেরপুরে বাড়ি পেলেন ২৭ পরিবার

ইসমাইল হোসেন, জেলা প্রতিনিধি, মেহেরপুরঃ শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আশ্রায়ণ প্রকল্প-২ এর উদ্বোধন করেছেন। মেহেরপুর জেলায় প্রথম দফায়...

মেহেরপুরে ফেন্সিডিলসহ এক নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক

মেহের আমজাদ,মেহেরপুর: মেহেরপুর ডিবি পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে ফেন্সিডিলসহ এক নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছে। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মেহেরপুর সদর...

বিবিএসের খানা জরিপ: দেশে ৪২ শতাংশ মানুষ এখন দরিদ্র

নিউজ ডেস্ক: করোনার প্রভাবে দেশে সার্বিক দারিদ্র্যের হার (আপার পোভার্টি রেট) বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪২ শতাংশ। দেশব্যাপী খানা পর্যায়ের জরিপের ভিত্তিতে এই তথ্য...

কারাগারে নারীর সঙ্গে বন্দির সময় কাটানোর ঘটনায় জড়িতরা শাস্তি পাবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, কারাগারে নারীর সঙ্গে সাজাপ্রাপ্ত বন্দির সময় কাটানোর ঘটনায় জড়িতরা বিধি অনুযায়ী শাস্তি পাবে। শনিবার একটি...

লন্ডন ফেরতদের কোয়ারেন্টাইনের সময় ৭ দিন বাড়লো

নিউজ ডেস্ক: লন্ডনফেরত যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের সময় চারদিন থেকে বাড়িয়ে আবার ৭ দিন করা হয়েছে। মাত্র ৮ দিনের মাথায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলো...