36 C
Dhaka
Wednesday, January 20, 2021
No menu items!

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

আজ ১৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশের জন্য হৃদয় তোলপাড় করা শোকের দিন। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের পরিসমাপ্তি ও স্বাধীনতার ঊষালগ্নে ঘাতক বাহিনীর দোসরদের হাতে প্রাণ দিয়েছিলেন এদেশের সেরা সন্তান বুদ্ধিজীবীরা। শিক্ষক, চিকিৎসক, সাংবাদিক, প্রকৌশলী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বসহ বিশিষ্ট বাঙালি নাগরিকরা সেদিন ওই ঘাতকদের জিঘাংসার শিকার হয়েছিলেন। আজকের এ শোকাবহ দিনে আমরা সেই মহৎপ্রাণ শহীদ বুদ্ধিজীবীদের গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।

এটা আর অস্পষ্ট নেই যে, নিজেদের অবধারিত পরাজয় এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে আর অটকে রাখা সম্ভব নয়, এটা উপলব্ধি করতে পেরেই ঘাতক বাহিনী ওই হত্যালীলায় মেতে উঠেছিল। হিংস্র হায়েনার মতো তীক্ষ্ন দাঁত বের করে ওরা ধেয়ে এসেছিল। ওরা চেয়েছিল স্বাধীন বাংলাদেশ যাতে শিক্ষা, সংস্কৃতিসহ নানা ক্ষেত্রে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে। তাই জাতির সেরা সন্তানদের হত্যা করে বাংলাদেশকে পঙ্গু করে দিতে। সেদিন পাক হানাদার বাহনীর দোসর রাজাকার, আল বদও, আল শামস বাহিনী যে নৃশংসতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে, তা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। কেননা, যুদ্ধ-বিগ্রহে মানুষ হতাহতের ঘটনা বিশ^ ইতিহাসে অনেক ঘটলেও নীরিহ পেশাজীবী-বুদ্ধিজীবীদের ঘর থেকে ধরে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করার নজির নেই বললেই চলে। সেই মানবতাবিরোধী অপরাধই সেদিন সংঘটিত হয়েছিল স্বাধীনতাবিরোধীদের দ্বারা। আর তাই প্রতি বছর ১৪ ডিসেম্বর তারিখটি এসে আমাদেরকে সে বীভৎস ঘটনার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। সে সাথে স্মরণ করিয়ে দেয় এদেশ, এ জাতির শত্রুদের বিরুদ্ধে সতর্ক ও সজাগ থাকার কথা।

আমরা এখন স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর প্রবেশদ্বারে দাঁড়িয়ে আছি। কিন্তু এখনও স্বাধীনতার শত্রুদের অপতৎপরতার শেষ নেই। নানা উছিলায় ওরা বিশৃক্সখলা সৃষ্টি করে আমাদের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে তৎপর হয়ে ওঠে। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীনতার শত্রুরা ছিল প্রকাশ্য। কিন্তু আজ স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের শত্রুরা দেশপ্রেমিকের ছদ্মবেশে ছড়িয়ে আছে রাষ্ট্র ও সমাজের বিভিন্ন স্তরে।

একটি দেশ বা জাতিকে ধ্বংস করতে হলে তার সংস্কৃতির মূলে আঘাত করো- ইতিহাসের কুখ্যাত খলনায়কের এই উক্তিকে অবলম্বন করে ওরা আজ আমাদের সংস্কৃতিকে ধ্বংস করতে তৎপর। আধুনিকতার নামে ওরা অত্যন্ত সুকৌশলে আমাদের নতুন প্রজন্মেও ভেতর বুনে দিচ্ছে অপসংস্কৃতির বীজ; যা একদিন বিষবৃক্ষ হয়ে আমাদেও সংস্কৃতিকে সমূলে ধ্বংস করে দিতে পারে। বিদেশি সংস্কৃতির অনুকরণ করতে গিয়ে আজ আমরা আমাদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে হারাতে বসেছি। আমাদের নতুন প্রজন্ম যেভাবে তথাকথিত আধুনিকতার গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে চলেছে, তাতে যে তারা শেকড়ছাড়া উদ্ভিদে পরিণত হতে চলেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। মাটির সাথে সম্পর্কহীন উদ্ভিদ যে বেশিদিন সতেজ থাকতে পারেনা, এ সত্যটি উপলব্ধি করে সচেতন ব্যক্তিরা প্রমাদ গুণছেন।

অন্যদিকে আমাদের অর্থনীতির কোমর ভেঙে দিয়ে চিরতরে পঙ্গু করার একটি সুগভীর অথচ সু² ষড়যন্ত্র চলছে। দুর্নীতির মাধ্যমে রাষ্ট্র, তথা জনগণের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে তা বিদেশে পাচার করছে এক শ্রেণির সরকারি আমলা, রাজনীতিক ও ব্যবসায়ী। এরা মুখে দেশপ্রেমের বুলি কপচালেও কাজকর্মে দেশ ও জাতির ঘোরতর শত্রু বৈ কিছু নয়। প্রতি বছর হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে এরা জাতির অর্থনীতিকে ফোকলা করে দিচ্ছে। মাঝেমধ্যে দু’চারটি চুনোপুঁটি ধরা পড়লেও রাঘব-বোয়ালেরা বরাবর থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। আজ সময় এসেছে দেশের শত্রু এসব দুষ্কৃতকারীদের চিহ্নিত করে প্রতিহত করার পদক্ষেপ নেয়ার।

স্বাধীনতাযুদ্ধে বুদ্ধিজীবীসহ যারা তাঁদের প্রাণ অকাতরে বিুিলয়ে দিয়েছিলেন, তাদের স্বপ্ন ছিল একটি সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশের। কিন্তু আজ বলতে দ্বিধা থাকার কথা নয়, পঞ্চাশ বছর পার হতে চললেও সে বাংলাদেশ আমরা এখনও পাইনি। এটা আমাদের ব্যর্থতা। এ ব্যর্থতার দায় কারো একার নয়, আমাদের সবার। আমরা আমাদের গণতন্ত্রকে এখনো প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পারিনি, নির্মূল করতে পারিনি দুর্নীতি-অনাচার। আমরা যদি এখনও সতর্ক ও সচেতন না হই, দেশ ও জাতির প্রতি আমাদের দায়িত্ব-কর্তব্য পালনে সচেষ্ট না হই, তাহলে আগামী প্রজন্ম আমাদেরকে ক্ষমা করবে না।

আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতি সৌধে পুষ্পার্ঘ অর্পন করবে, তাঁদেও রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মহফিল করবে, আলোচনা সভায় মুখে উচ্চারণ করবে লাখো শহীদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের শপথের কথা। কিন্তু বাস্তবে আমরা তার কতটুকু পালন করতে পারব সেটাই প্রশ্ন। আমরা মনে করি, শহীদদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদেরকে আন্তরিকভাবেই দেশপ্রেমিক হতে হবে, দেশ ও জাতির প্রাতি হতে হবে বিশ্বস্ত। অন্যথায় দিবস পালন আটকে থাকবে কেবলই আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে।

সর্বশেষ

মেহেরপুরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে যুবক গ্রেফতার

মেহের আমজাদ,মেহেরপুর : মেহেরপুর জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে হেরোইনসহ ফখরুল ইসলাম নামের এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।...

গাংনীতে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে ১০টি ইটভাটায় ৬০ লাখ টাকা জরিমানা

মেহের আমজাদ,মেহেরপুর: মেহেরপুর জেলার গাংনীতে ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে কাঠপোড়ানো ও পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না থাকায় গাংনী উপজেলার ১০টি ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালত...

মেহেরপুর পৌরসভার মেয়রের কম্বল বিতরণ

মেহের আমজাদ,মেহেরপুর: মেহেরপুর পৌর সভার মেয়র মাহফুজুর রহমান লিটন এর উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে পৌরসভা কার্যালয়...

মুজিবনগরের গোপালনগরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দোকান মালিককে জরিমানা

মেহের আমজাদ,মেহেরপুর: মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার গোপালনগর গ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে জাপান টোব্যাকো কোম্পানির শেখ সিগারেটের প্রচার ও বিজ্ঞাপন বোর্ড দোকানে সরবরাহ ও...

আলুর জমিতে কাজ করে বাড়তি আয়

নজরুল ইসলাম, শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: আলুর জমি পরিচর্যা ও বিভিন্ন কাজকর্ম করার মাধ্যমে শতশত নিম্নআয়ের মানুষের বাড়তি আয়ের কর্মসংস্থান হয়েছে। বিস্তীর্ণ আলুর...