36 C
Dhaka
Wednesday, September 30, 2020
No menu items!
More

    সিরাজদিখানে জীবিকার জন্য পত্রিকার হকার মোস্তফা এখন ফল বিক্রেতা!

    অন্য জেলার হওয়ায় সাহার্য্য করে না কেউ

    সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখানে পত্রিকার হকারের কাজ করতেন মোহাম্মদ মোস্তফা(৪৫)। করোনার জন্য ঘোষিত সাধারণ ছুটির কারণে বন্ধ হয়ে যায় তা। মোহাম্মদ মোস্তফার পত্রিকা বিক্রির কাজও বন্ধ হয়ে যায়। আয়ের পথও বন্ধ। অথচ ঘরে অসুস্থ স্ত্রী। আবার আছে সংসার খরচ। অন্য জেলার হওয়ায় সাহার্য্য করে না কেউ। তাই নিরুপায় হয়ে ফুটপাতে ফল বিক্রির শুরু করেন তিনি। গতকাল সোমবার দুপুরে মোস্তফার কাছে গিয়ে দেখা গেল খেজুর, আপেল,বেদানা,মালটা বিক্রি করছে। সিরাজদিখান বাজার থানা সংলগ্ন মুরগীর হাটের মিস্টির দোকোনের পাশেই মোস্তফার এই অস্থায়ী দোকানটি। দীর্ঘদিন ২০ বছর ধরে মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখানে হকার হিসেবে কাজ করেন শরিয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার চরখোরতলা গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ মোস্তফা। দিনে ৫০০ টাকা করে প্রতি মাসে তাঁর আয় ১৫ হাজার টাকা। এই টাকা দিয়ে তাঁর স্ত্রী, দুই ছেলেসহ পাঁচজনের সংসার চলে। করোনা সংক্রমণ রোধে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করার পরপরই তাঁর কাজ বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় এক মাসেও সাধারণ ছুটি শেষ হওয়ার লক্ষণ না দেখে সংসার চালাতে ফল বিক্রি করতে নেমে পড়েছেন বাজারের ফুপাতে। হকার মোহাম্মদ মোস্তফা বলেন,জীবনের ২০টি বছর এই এলাকার মানুষের হাতে হাতে সংবাদপত্র পৌঁছে দিয়েছেন। রোদ-ঝড়-বৃষ্টি বা কনকনে শীতেও পাঠকের কাছে সংবাদপত্র পৌঁছে দেয়া ছিল দিনের প্রখম কাজ। অথচ আমি অন্য জেলার লোক হওয়ায় সরকারী-বেসরকারী কোন সাহার্য্য আমাকে করে না কেউ । করোনার ধাক্কায় পেশা পাল্টানোর এই গল্প শুধু মোহাম্মদ মোস্তফার নয়। তাঁর মতো ¯^ল্প আয়ের অনেকেই জীবিকার তাগিদে বেছে নিয়েছেন নতুন নতুন পথ। এখন তাঁদের কেউ রিকশাচালক, কেউ হয়েছেন সবজি বিক্রেতা, কেউ গলি গলি ঘুরে মাছ বিক্রি করছেন, আবার কেউ ফলমূল। অনেকে মৌসুমি ব্যবসা অর্থাৎ মাস্ক, গ্লাভসও বিক্রি করছেন। দেশে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে গত ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এরপর দফায় দফায় বাড়তে থাকে সাধারণ ছুটির মেয়াদ। করোনার সামাজিক সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না আসায় কবে নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, এখনো বলতে পারছেন না বিশেষজ্ঞরা। এ অবস্থায় ঘরবন্দী হয়ে বিপাকে পড়েছেন বিভিন্ন পেশার নিম্ন আয়ের মানুষ। এমনি আরেকজন সিরাজদিখান বাজারের চা বিক্রেতা শিবু দাস সবজি বিক্রির সময় বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে চা দোকান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকার হয়ে বসে আছি। কখন আবার চা দোকান খুলবে জানি না। তাই পেটের তাগিদে চায়ের দোকানের সামনেই কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় সবজী নিয়ে বিক্রি করতে বসে পড়েছি । দুই মেয়ে স্ত্রীরীর মুখে খাবার তো দিতে হবে।

    সর্বশেষ

    দেশে প্রযুক্তি পণ্যের সংকট, এবার দাম বেড়েছে খুচরা বাজারে!

    নিউজ ডেস্ক: দেশের প্রযুক্তিবাজারে পণ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। ডিলার ও ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী আমদানিকারক ও পরিবেশকরা পণ্য সরবরাহ করতে না পারায় এই...

    ‘বিশৃঙ্খলপূর্ণ’ ছিলো ট্রাম্প-বাইডেনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম বিতর্ক

    নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম বিতর্ক অনুষ্ঠানেই চরম বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাতে ওহাইও অঙ্গরাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে ৯০...

    করোনার সময়ে হৃদযন্ত্র সুস্থ রাখতে আমাদের যা করতে হবে

    নিউজ ডেস্ক: এই করোনাকালে হার্টের সমস্যা থাকলে চলতে হবে অনেক বেশি সাবধানে। মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধিসহ আরও কিছু বিষয়।কারণ বিশেষজ্ঞরা বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত...

    গৃহবধু চম্পারানী হত্যার বিচার দাবীতে ভাঙ্গায় মানববন্ধন

    মাহমুদুর রহমান(তুরান)ভাঙ্গা(ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার নাছিরাবাদ ইউনিয়নের দুয়াইর গ্রামের মনোরঞ্জন দাসের মেয়ে চম্পা রানী কর্মকার(২২) কে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের...

    রাজ কাপুর-দিলীপ কুমারের পৈতৃক বাড়ি কিনে নেবে পাকিস্তান সরকার

    বিনোদন ডেস্ক: কিংবদন্তি ভারতীয় অভিনেতা রাজ কাপুর ও দিলীপ কুমারের পৈতৃক ভিটা কিনে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রশাসন।